1. [email protected] : Reporter : Reporter
  2. [email protected] : MJHossain : M J Hossain
  3. [email protected] : isaac10j54517 :
  4. [email protected] : janetbaader69 :
  5. [email protected] : katherinflower :
  6. [email protected] : makaylafriday8 :
  7. [email protected] : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. [email protected] : meredithbriley :
  9. [email protected] : olamcevoy1234 :
  10. [email protected] : roseannaoreily4 :
  11. [email protected] : sebastianstanfor :
  12. [email protected] : tangelamedina :
  13. [email protected] : teenaligar6 :
  14. [email protected] : xugmerri6352 :
  15. [email protected] : yzvhildegarde :
মাদারীপুরের সফল সংগ্রামী নারী উদ্যোক্তা "আলপনা কর্মকার" - BBC News 24

রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ১০:২৭ পূর্বাহ্ন

সবার দৃষ্টি আকর্ষন:
অ্যাসাইনমেন্ট ২০২১: তৃতীয় সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট এর উত্তর লিখার কাজ চলছে। সর্বশেষ উপডেট পেতে সাথেই থাকুন
মাদারীপুরের সফল সংগ্রামী নারী উদ্যোক্তা “আলপনা কর্মকার”

মাদারীপুরের সফল সংগ্রামী নারী উদ্যোক্তা “আলপনা কর্মকার”

বিবিসিনিউজ২৪,ডেস্কঃ মানিকগঞ্জের মেয়ে “আলপনা কর্মকার “।যিনি একজন সফল উদ্যোক্তা, সফল ব্যবসায়ী। তিনি ২০২০ সাল থেকে পড়াশোনার পাশাপাশি চালিয়ে যান জীবন সংগ্রামের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা।তবে থেমে থাকেননি তিনি। দুর্গম পথ এবং ব্যার্থতার গ্লানি উপেক্ষা করে আজ সাফল্যর দ্বারপ্রান্তে ” আলপনা কর্মকার “।হাটি হাটি পা পা করে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে সাথে নিয়ে তিনি হয়ে উঠেন মানিকগঞ্জের সফল নারী উদ্যোক্তা।

”উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প নিয়ে টেকজুমের এবারের আয়োজন।মানিকগঞ্জের মেয়ে “আলপনা কর্মকার ” এর উদ্যোক্তা হয়ে ওঠা নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন বিবিসিনিউজ২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার। পাঠকদের উদ্দেশ্যে সাক্ষাৎকারটি তুলে ধরা হলো-

আপনার সম্পর্কে কিছু বলতেন?
আদাপ আমি আলপনা কর্মকার। বাবার বাড়ি মাদারীপুরে। শশুর বাড়ি মানিকগঞ্জ টেপড়া।কর্ম সূএে ঢাকাতেই থাকা হয়। ২ সন্তানের জননী তবে আমার আরো একটি পরিচয় আছে আমি একজন সফল নারী উদ্যোক্তা।

3rd week assignment 2021

 
hostseba.com
 

উদ্যোক্তা আগ্রহ কিভাবে তৈরি হলো?
আসলে ছোট থেকেই আমার খুব ইচ্ছে ছিল নিজে কিছু করার কিন্তু সেই রকম কোনো সুযোগ সুবিধা ছিল না এখন কার মতো। আবার অনেক কেই দেখছি কিছু না কিছু করছে তখন আমি মনে মনে ভাবলাম আমি কেন না। হ্যা তবে আমার ইচ্ছা, শক্তি, ও মনের জোর, নিজের উপর ভরসা, ভাবনা থেকেই আমার অনলাইনে বিজনেস টা শুরু করি। ২০২০ সাল এর আগস্ট মাস থেকে।

আপনি অনলাইন বিজনেস এ আইডল হিসেবে কাকে দেখছেন?
সত্যি বলতে আইডল হিসেবে আমি আমার হাসবেন্ড কেই দেখি। কারন তার থেকেই আমার বিজনেস এর হাতে খড়ি।তার অনুপেরনা আর আমার ইচ্ছা মিলেই আমি একজন উদ্যোক্তা। তার সহযোগিতা ও সে পাশে আছে বলেই আজ আমি একজন সৎ অনলাইন বিজনেসম্যান।

কতুটুকু সফলতা লাভ করেছেন বলে মনে করেন?
আমি যখন অনলাইন বিজনেস শুরু করি তখন আমাকে কেউ চিনতো না জানতো না। একটু একটু করে সবার সাথে মিশেছি যেনেছি তারাও আমাকে চিনছে যানছে আজ আমার ৬৪ জেলার কাস্টমার আছে। এবং তারা আমাকে চিনে বিশ্বাস, ভরসা করে ওফ্ ঈশ্বর এই অনেক কিছু, তাদের সার্পোট এ আমি আরো উৎসাহিত হই আমার কাজের গতি আরো বেড়ে যায়।তাদের সার্পোট এ আজ আমি এতো দূর আসতে পারছি। তাই ২য় তো তাদের কাছে আমি অনেক কৃতজ্ঞ।

আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা কি?
আসলে শেখার কোনো বয়স নাই জানার ও কেনো শেষ নাই। আমি আরো জানতে, শিখতে চাই।বর্তমানে আমার একটাই পরিকল্পনা আমি আস্তে আস্তে সততা ও সবার বিশ্বাস অর্জনের পাশাপাশি  আমার নিজের বিজনেস টাকে বড় করতে চাই এবং আমাকে দেখে আরো ১০ টা নারী উৎসাহিত, আগ্রহী হোক।এবং আমি এই ভাবে যেন মেয়েদের পাশে থেকে তাদের সেবা দিয়ে যেতে পারি।

আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা যদি বলতেন?
আমার শিক্ষাগত যোগ্যতা তেমন না আসলে আর্থিক অস্বচ্ছলতার কারনে আমি তেমন পড়াশোনা করতে পারিনি।এস, এস,সি টা আর আমার দেয়া হয় নাই।

আপনি কি ভাবে চ্যালেন্জ গুলোকে মোকাবিলা করছেন?
ঈশ্বর এর কৃপায় এখন ও পর্যন্ত কোনো চ্যালেন্জ এর মোকাবেলা করতে হয় নাই, আর সত্যি বলতে কে কি বলল তা নিয়ে আমার বৃন্ত মাএ মাথা ব্যথা নাই আমি আমার মতো করে থাকতেই পছন্দ করি। আর সব চেয়ে বড় কথা আমার পাশে সব সময় আমার হাসবেন্ড এর সার্পোট আছে।আর আসা করি সামনে কোনো চ্যালেন্জ আসলেও খুব সহজেই মোকাবেলা করতে পারবো।

আপনার নতুন প্রোডাক্ট গুলো কি কি?
আসলে আমার মেইন প্রোডাক্ট হচ্ছে মেয়েদের ব্যান্ড এর ইনার আইটেম পোশাক, তার পাশাপাশি ভালো কোয়ালিটির ওয়ান পিছ কুর্তি,ও হাফ সিল্ক জামদানি শাড়ি, জুয়েলারি  নিয়েও কাজ করবো।

বর্তমানে কভিড ১৯ এ ই কমার্স?
করোনা একটি মহামারী  প্রানঘাতী ভাইরাস। বর্তমানে কোভিড ১৯ এ কারনে ই- কমার্স ভালো সাড়া পাচ্ছে সাড়া দেশে ও সারা বিশ্বে। বাংলাদেশেও এর ভালো অবস্থান। অনলাইনে কেনাকাটা করার আগ্রহ, জনপ্রিয়তা বাড়ছে অনেক ঘরে বসেই কয়েকটা ক্লিক এর মাধ্যমে সব কিছু পছন্দসই পেয়ে যাচ্ছে সহজেই। বেশির ভাগই সরাসরি বাজারে না গিয়ে অনলাইন মার্কেট থেকেই পন্য ক্রয় করে বর্তমানে অনেক আনন্দ, সুবিধা এবং ভালো সার্ভিস পাচ্ছে। তবে তার মধ্যে প্রতারকের সংখ্যাও কম না এদের জন্য অনেক সময় ক্রেতা আমাদের মতো বিক্রেতাদের উপর থেকে বিশ্বাস, ভরসা হাড়িয়ে ফেলে। এদের যদি থামানো দমানো যেত তাহলে আমাদের মতো হাজারো নারীর অনেক অনেক সুবিধা হতো এবং ই- কমার্স আরো সামনের দিকে এগিয়ে যেতো।

পরিশেষে স্রোতাদের উদ্দেশ্য কিছু বলুন?
পরিশেষে এটাই বলতে চাই ইচ্ছা থাকলে উপায় হয়। মনের জোর থাকলে মেয়েরাও অনেক কিছু করতে পারে। প্রতিটা মেয়েরই বিশেষ করে আমার মতো মেয়েদের কথা বলছি কিছু করে হলেও তাদের নিজের পায়ে দাঁড়ানোটা উচিৎ নিজের পায়ে দাঁড়ানোর মধ্যে আলাদা একটা ভালো লাগা কাজ করে। “আমরা নারী আমরাই পারি” প্রতিটা নারীর মধ্যেই একটা প্রতিভা লুকিয়ে থাকে তাকে শুধু বাইরে বের করে নিয়ে আসতে হবে। যে যা পারবে তাই নিয়েই শুরু করতে পারে। “কথায় আছে যে নারী রাধেঁ সে চুল ও বাধেঁ” যদি আমাদের ইচ্ছে শক্তি থাকে নিজের প্রতি ভরসা,বিশ্বাস  থাকে পরিবারের একটু সার্পোট থাকে তবে কোনো কিছুই এই নারীর পক্ষে অসম্ভব না তা খুব সহজ হয়ে উঠবে। সবশেষে বলবো সবাই আমার জন্য দোয়া/ আর্শিবাদ করবেন আমি যেন আমার মন স্থির  রেখে সততার সাথে আমার এই বিজনেস টাকে আরো সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি সবার দোয়া ও আর্শিবাদ একান্ত কাম্য।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team