1. [email protected] : Reporter : Reporter
  2. [email protected] : MJHossain : M J Hossain
  3. [email protected] : isaac10j54517 :
  4. [email protected] : janetbaader69 :
  5. [email protected] : katherinflower :
  6. [email protected] : makaylafriday8 :
  7. [email protected] : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. [email protected] : meredithbriley :
  9. [email protected] : Muhibullah Chy : Muhibullah Chy
  10. [email protected] : olamcevoy1234 :
  11. [email protected] : roseannaoreily4 :
  12. [email protected] : sebastianstanfor :
  13. [email protected] : tangelamedina :
  14. [email protected] : teenaligar6 :
  15. [email protected] : xugmerri6352 :
  16. [email protected] : yzvhildegarde :

রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০২:১৯ পূর্বাহ্ন

আমাদের বাংলাদেশের রয়েছে আরো বড় মহাবীর

আমাদের বাংলাদেশের রয়েছে আরো বড় মহাবীর

Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্কঃ ভারতীয় পাইলট অভিনন্দনকে কতই না বাহবা দেয়া হলো। যেকিনা যুদ্ধবন্দী ছিলো। অথচ আমরা জানিই না যে আমাদের রয়েছে এরচেয়ে অনেক অনেক বড় মহাবীর। শুধু বাংলাদেশী বলে আমাদের প্রচার হয় না। নাকি নিজেরা নিজের কদর করি না। শুনুন তাহলে আরেক বীরের কথা।

স্বাধীনতার ঠিক পরপরই ১৯৭২ সালের ৪ জানুয়ারী দুঃসাহসিক এবং সাফল্যজনক এক ঘটনার অবতারণা করেন অকুতোভয় এক বাঙালি সেনা অফিসার ২/লেঃ হুমায়ুন রেজা। দেশ শত্রুমুক্ত হবার মাত্র ১৯ দিন পর এমন ঘটনা শুধু বাংলাদেশের নয় বিশ্বের ইতিহাসে সম্ভবত একমাত্র ঘটনা।

আর্মিতে যোগদানের আগেই রেজা ছিলেন কমার্শিয়াল লাইসেন্সধারী একজন পাইলট। ১৯৭১ সালে ২/লেঃ রেজা পাকিস্তানের শিয়ালকোট বর্ডারে সিগনাল ব্যাটালিয়নে কর্মরত ছিলেন। আগস্টের মাঝামাঝি সময় রেজার মেস রুমমেট ক্যাপ্টেন এম শাহজাহান ওমর (পরবর্তীতে মেজর, ব্যারিস্টার, সাবেক মন্ত্রী এবং বীর উত্তম উপাধিতে ভূষিত) পালিয়ে ভারতে চলে যান এবং মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। এই ঘটনার ফলে রেজা পড়ে যান পাকিস্তানীদের কড়া নজরদারিতে এবং পালানোর সব পথ বন্ধ হয়ে যায়।

১৯৭২ সালের ৪ঠা জানুয়ারী পাকিস্তানের গুজরানওয়ালা ক্যান্টনমেন্ট থেকে আমেরিকার তৈরি পাকিস্তান আর্মি এভিয়েশনের একটি এরোনকা এল-৩ সামরিক বিমান শিয়ালকোট আসে একজন পাক সিনিয়ার অফিসারকে নামিয়ে দেয়ার জন্য। পাইলট ছিলেন পাক মেজর কাশেম। ফেরত যাওয়ার সময় সিট খালি থাকতে ২/লেঃ রেজা উঠেন অন্য একটি জায়গায় নামার জন্য। সুযোগের অপেক্ষায় ছিলেন ২/লেঃ রেজা। মাঝ পথে পাক পাইলটকে গুলি করে হত্যা করে বিমানের নিয়ন্ত্রন নেন। দক্ষতার সাথে চালিয়ে পাকিস্তানীদের চোখ ফাঁকি দিয়ে বর্ডার অতিক্রম করে ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের জলন্ধরের হশিয়ারপুর এলাকায় শুকনো একটি নদীর বালুচরে জরুরী অবতরণ করেন।

 
hostseba.com
 

পাকিস্তানী পতাকাবাহী উড়োজাহাজ এবং ২/লেঃ হুমায়ুন রেজা’র গায়ে পাক সামরিক বাহিনীর ইউনিফর্ম দেখে আশেপাশের গ্রামবাসী লাঠিসোটা নিয়ে ধাওয়া করে চারিদিক থেকে। উপায়ন্তর না দেখে ভুট্টা ক্ষেতের ভিতর দিয়ে প্রায় ৫ মাইল দৌড়ে এক স্কুলে গিয়ে আশ্রয় নেন ২/লেঃ রেজা। স্কুলের হেডমাষ্টার বিষয়টি শুনে ২/লেঃ হুমায়ুন রেজাকে বুকে জড়িয়ে ধরেন। হেডমাষ্টার বিষয়টি গ্রামবাসীদের অবগত করে শান্ত করেন এবং আপ্যায়িত করেন বেশ আন্তরিকতার সাথে ২/লেঃ হুমায়ুন রেজাকে। খবর পেয়ে জলন্ধরের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট এবং ভারতীয় বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের একজন কর্নেল এসে ২/লেঃ রেজাকে জলন্ধর শহরে নিয়ে যায় এবং ভারতীয় এয়ার ফোর্সের একটি বিমানে করে রেজাকে পাঠিয়ে দেয়া হয় দিল্লীতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে। সেখানে কয়েকদিন বিভিন্ন ধরনের জিজ্ঞাসাবাদ এবং পর্যবেক্ষণের পরে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ সসম্মানে ২/লেঃ রেজাকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয়া হয়।

বিমানটি বর্তমানে ভারতের সামরিক মিউজিয়ামে রক্ষিত আছে ।
পাকিস্তানী বিমান হাইজ্যাকের সাফল্যজনক ঘটনাটি তখন ভারতীয় বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় বিশেষ করে Hindustan Times ও The Statesman এ ফলাও করে প্রকাশ হয়। প্রকাশিত হয় ২/লেঃ হুমায়ুন রেজা এবং হাইজ্যাককৃত বিমানের ছবি।

২/লেঃ হুমায়ুন রেজা ১ম ইস্টবেঙ্গলে যোগদান করেন এবং ১৯৭২ সালেই ক্যাপ্টেন পদে উন্নিত হন। বেসামরিক বিমান চালনার কমার্শিয়াল লাইসেন্স থাকায় জেনারেল ওসমানী বঙ্গবন্ধুর সাথে আলোচনা করে ১৯৭৪ সালে তাকে বাংলাদেশ বিমানে deputation এ পাঠান। পরবর্তীতে তিনি এফ-২৭, বোয়িং ডিসি-১০এর পাইলট হিসাবে অত্যন্ত সুনামের সাথে বিমান পরিচালনা করেন। ২০০৪ সালে বিমান থেকে অবসর নিয়ে বর্তমানে ঢাকায় পরিবারের সাথে অবসর জীবনযাপন করছেন এই বীর যোদ্ধা।

আমাদের আকুল আবেদন সরকারের কাছে, ঐ বিমানটি যেন বাংলাদেশে ফেরত এনে আমাদের যাদুঘরে রাখা হয়। কারণ ঐ যুদ্ধের সফল নায়ক যে একজন বাংলাদেশীেএবং সেটা তার একক ও বিরল কৃতিত্ব।

আপনার মতামত দিন

Tayyaba Rent Car BBC News Ads

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team