Categories
গণমাধ্যম জাতীয় রংপুর-বিভাগ লিড নিউজ সারাদেশে

লালমনিরহাটে অটোা ছিনতাইয়ের আসামীকে রাজারহাট থানা কর্তৃক গ্রেফতার

আবু জাফর সোহেল রানা,রংপুর ব্যুরো প্রতিনিধিঃরোববার (৪ অক্টোবর) আনুমানিক রাত ১০.৩০ মিঃ সময় লালমনিরহাট সদর বড়বাড়ি ইউনিয়নের নারকেলবাড়ি নামক এলাকায় দুষ্কৃতকারী কর্তৃক এক অটো চালক কে গলায় ছুরিকাঘাত করে অটো ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। আহত অটোচালক রাজারহাট সদর এলাকার আবুল কাশেমের পুত্র আব্দুল লতিফ কে সংকটাপন্ন অবস্থায় কুড়িগ্রাম সরকারী হাসপাতালে নেয়া হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয় বলে জানা গেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ঘটনার সংবাদপ্রাপ্ত হয়ে
রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকারের নির্দেশনায় থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঘটনাস্থল লালমনিরহাট সদর থানার অন্তুর্ভুক্ত হওয়ায় ওসি রাজারহাট কুড়িগ্রাম পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মহিবুল ইসলাম খান বিপিএম’র নির্দেশনায় ওসি লালমনিরহাট কে অবহিত করেন। রাজারহাট থানা পুলিশ রাত ২ টার সময় ছিনাইয়ের চওড়া বাজার এলাকা থেকে ছিনতাইকারী সাইফুল (২২) কে ছিনতাইয়ের অভিযুক্ত হিসেবে আটক করে।

রাজারহাট থানা পুলিশের হাতে আটক ছিনতাইকারী সাইফুল রাজারহাট উপজেলার হরিশ্বর তালুক গ্রামের খলিলুর রহমানের পুত্র বলে জানা গেছে। অতঃপর লালমনিরহাট সদর থানা কে আসামী আটকের বিষয়টি জানালে লালমনিরহাট থানার এস আই আসাদ তার সঙ্গীয় ফোর্স সহ রাজারহাটের চওড়া বাজারে এসে ছিনতাইকারী সাইফুলকে লালমনিরহাট থানায় নিয়ে যান। লালমনিরহাট থানার এস আই আসাদ ঘটনার সত্যতা স্মীকার করে আসামী সাইফুল কে লালমনিরহাট থানায় নেয়ার বিষয়টিও নিশ্চিত করেন। আহত আঃ লতিফ সরকারের পারিবারীক সূত্রে জানা গেছে, লালমনিরহাট থানা রাজারহাট থানার মাধ্যমে তাদের সাথে যোগাযোগ করেছে। অটো চালক আঃ লতিফের স্ত্রীর ভাই সৈয়দ আলী মামলার বাদী লিখিত এজাহার দিতে লালমনিরহাট থানায় অবস্থান করছেন।

লালমনিরহাট থানার অফিসার ইনচার্জ শাহ আলম জানান, মামলা রুজু করে আটক আসামীকে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে। অটো টি উদ্ধার হয়েছে বলেও জানান। মামলা নং- লালমনিরহাট সদরথানা -০৬ তাং- ০৫-১০-২০২০ইং।

অপরাপর ছিনতাইকারী হাফিজুল ইসলাম(২২) ও সুজন( ২১) পলাতক রয়েছে বলে জানান রাজার হাট থানা অফিসার ইনচার্জ রাজু সরকার। তিনি বলেন বাকি আসামী আটক ও মামলার তদন্তে লালমনিরহাট থানাকে সহযোগিতা করা হবে ।

ঘটনার বিবরন ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছিনতাইয়ের স্থানটি কুড়িগ্রাম – লালমনিরহাট সীমানা রাস্তা ও সেলিম নগড় বাজারের উত্তরদিকে হলেও ঘটনাটি ঘটেছে লালমনিরহাট থানার অন্তর্ভূক্ত এলাকায়। রাজারহাট সদর ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার শহিদুল ইসলাম জানান,ছিনতাইয়ের কবলে পড়া অটোচালক আঃ লতিফ তার পরিচিত। শফিকুল ইসলাম খবর পেয়ে হাসপাতালে নেয়ার সময় সাথে যান এবং আহত অটোচালকের সাথে কথা বলে দুষ্কৃতিকারীদের পরিচয় সনাক্ত সহ আইনগত সহযোগিতা চেয়ে তিনি রাজারহাট থানা পুলিশ কে ফোন করেন।

Categories
গণমাধ্যম চট্টগ্রাম-বিভাগ জাতীয় রাজনীতি লিড নিউজ সারাদেশে

বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে অদম্য পথিক ফাউন্ডেশনের ১ লক্ষ বৃক্ষরোপন

প্রেস বিজ্ঞপ্তিঃ বিভিন্ন প্রজাতির  ১ লক্ষ বৃক্ষ রোপণের উদ্যোগ নিয়ে এখন পর্যন্ত ৭০ হাজার বৃক্ষরোপণ করেছে অদম্য পথিক ফাউন্ডেশন।

 

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন উপাদান হচ্ছে এই বৃক্ষ। অথচ স্রষ্টা প্রদত্ত মানবজাতির এই বিশাল উপহার মানুষেরই অবহেলায় হারাতে বসেছে। দিন দিন কমে যাচ্ছে গাছপালার পরিমান। হারাতে বসেছে পৃথিবীর স্বাভাবিক সৌন্দর্য্য। এমনকি এর অভাবে আমাদের পৃথিবীর অস্তিত্ব এখন হুমকির সম্মুখিন। তাইতো সবুজ বনায়ন সৃষ্টির লক্ষে সবুজ প্রকৃতির আপন রূপ ফিরিয়ে দিতে তরুনদের সম্পৃক্তা করে “অদম্য পথিক ফাউন্ডেশন” দেশের এবং বৈশ্বিক প্রয়োজন অনুধাবন করে অদম্য পথিক ফাউন্ডেশন ফটিকছড়ি কাঞ্চন নগর, চট্টগ্রাম মহানগর ,খাগড়াছড়ি,কক্সবাজার,রাউজান হাটহাজারী সহ বিভিন্ন অঞ্চলে,সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠান প্রাঙ্গনে ঔষধি, ফলজ ও বনজ জাতের গাছ রোপন করা হয়।

এ সময় অদম্য পথিক ফাউন্ডেশন সমন্বয়ক এম এ আহাদ চৌধুরী রায়হান বলেন  “এক লক্ষ বিভিন্ন প্রজাতির বৃক্ষ রোপণের লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করছি। ইতোমধ্যে ৭০ হাজার বৃক্ষ আমরা রোপণ করেছি।

তিনি বলেন, ২০২০ সালের ডিসেম্বর মধ্যে আমরা টার্গেটে পৌঁছতে পারবো। বিগত কয়েক বছরে ফটিকছড়ি কাঞ্চন নগর,বাগানবাজার,দাঁতমারা, সহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অদম্য পথিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচি পালন সম্পন্ন করেছি।

এ সময়  উপস্থিত ছিলেন অদম্য পথিক ফাউন্ডেশন প্রতিনিধি, ইমতিয়াজ আহমেদ জুবাইরী,ওয়াহিদুল আলম ওয়াহিদ,মোরশেদুল আলম,মোহম্মদ সেলিম,শেখ শরফুদ্দিন, তাজ উদ্দিন তাজু,পিন্টু দে সৌরভ, আবদুল্লাহ আল নোমান, ইমতিয়াজ চৌধুরী ,মোহাইমেনুল মাসুম ফারুকি, হারুনুর রশিদ,আশরাফ নূর,অভি দাশ,শাহাদাত হোসেন, অভিক দাশ ত্রিপুরা,এস এম আরাফাত,রিয়াজ  আল হাসান,শাহাজাহান সম্রাট ,তাসনিম রহমান,নাজমা সুলতানা, মোন্তাকিন ফজল, প্রমুখ ।

Categories
খুলনা-বিভাগ গণমাধ্যম জাতীয় রাজনীতি লিড নিউজ সারাদেশে

শরণখোলায় উপনির্বাচনে প্রর্থীদের আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু

সরদার মোঃ হাসিবুর রহমান, শরনখোলা প্রতিনিধি: বাগেরহাটের শরণখোলায় উপজেলা চেয়ারম্যান পদে উপনির্বাচনে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা শুরু করেছে প্রর্থীরা। রোববার প্রতীক বরাদ্দের পরে তারা এ প্রচারণা শুরু করেন।

ওই দিন সকাল ১১ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করেন জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ বেনজির আহম্মেদ ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা অঞ্জন সরকার। প্রর্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ মনোনীত মোঃ রায়হান উদ্দিন শান্তকে নৌকা, বিএনপি প্রার্থী খান মতিয়ার রহমানকে থানের শীষ ও জাতীয় পার্টির প্রর্থী এ্যাডঃ শহিদুল ইসলামকে লাঙ্গল প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। নিজ নিজ দলীয় প্রতীক পেয়ে মিছিল-মিটিং ও গণসংযোগের মাধ্যমে প্রর্থীরা তাদের প্রচারনা অনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করেছেন।

রবিবার বিকেল ৫টায় উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে নৌকার সমর্থনে একটি মিছিল রায়েন্দা বাজার প্রদক্ষিন করে পাঁচ রাস্তার মোড়ে পথ সভায় মিলিত হয়। বক্তব্য রাখেন, আওয়ামীলীগের প্রার্থী মোঃ রায়হান উদ্দিন শান্ত, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজমল হোসেন মুক্তা, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আসাদুজ্জামান স্বপন, তালুকদার হুমায়ুন করিম সুমন, ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম জীবন, শরীফ খায়রুল ইসলাম।

এছাড়া বিএনপির প্রার্থী খান মতিয়ার রহমান দলীয় কর্মী সভার মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করেন। উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোল্লা ইসাহাক আলীর বাসভবনে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নজরুল ইসলাম লালের সভাপতিত্বে এ প্রচারনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এ সভায় বক্তব্য রাখেন, ধানের শীষের প্রার্থী খান মতিয়ার রহমান, উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এম এ কাদের, সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন পঞ্চায়েত, ধানসাগর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আঃ জলিল হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন বাদল, রায়েন্দা ইউনিয়ন বিএনপি মিজানুর রহমান মোল্লা, সাউথখালী ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর হাওাদার, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম লিটন, উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মোল্লা ইব্রাহীম প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৫ ডিসেম্বর শরণখোলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন আকনের মৃত্যুতে পদটি শূন্য হলে গত ১৫ সেপ্টেম্বর উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন। আগামী ২০ অক্টোবর ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে।

Categories
এক্সক্লুসিভ গণমাধ্যম জাতীয় ঢাকা-বিভাগ লিড নিউজ সারাদেশে

সিংড়ায় বানভাসী মানুষের দুঃখ-দুর্দশা তুলে ধরলেন ইউপি চেয়ারম্যান মিনহাজ

ডেক্স রিপোর্টঃ নাটোর সিংড়া বন্যায় প্লাবিত প্রত্যন্ত এলাকা ৯ নং তাজপুর ইউনিয়নে বানভাসি মানুষের দুঃখ-দুর্দশা তুলে ধরলেন ইউপি চেয়ারম্যান মিনহাজ। আইসিটি প্রতিমন্ত্রী,সিংড়া ৩ আসনের মাটি ও মানুষের নেতা জুনায়েদ আহমেদ পলকে নিয়ে এলাকা পরিদর্শন কালে রাস্তা ভাঙ্গন সহ এলাকার মানুষের নানামুখী দুর্দশার কথা তুলে ধরেলে মন্ত্রী এসময় এলাকার বিভিন্ন সমস্যা চিহ্নিতকরণ এবং সময়োপযোগী ব্যবস্থা গ্রহণের আশ্বাস দেন।

৯ নং তাজপুর ইউনিয়নের মেরুদন্ড সিংড়া থানার রোড থেকে তাজপুর মুখি রোড এর হিয়াতুর এলাকার নদী ভাঙ্গন পরিদর্শন শেষে চেয়ারম্যান মিনহাজ উদ্দিন তাজপুর ব্রিজের নিচে জমে থাকা কচুরিপানা পরিষ্কারে নিয়োজিত শতাধিক মানুষের সাথে মন্ত্রীর কুশল বিনিময় করেন ।

মন্ত্রীর উপস্থিতিতে এ সময় আওয়ামী নেতা ও ইউনিয়নের বারবার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি মিনহাজ উদ্দিন এলাকাবাসীকে বলেন ,আপনাদের মত আমিও একজন বানভাসি অসহায় মানুষ বন্যাকবলিত এই সমস্যা আমাদের সকলের ,আমি আমার প্রাণপ্রিয় নেতা আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলকের নির্দেশনায় সব সময় দুর্যোগ মোকাবেলায় আপনাদের পাশে আছি এবং আমরা কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করার মধ্য দিয়ে এ সমস্যার সমাধান করব ইনশাআল্লাহ

 

Categories
গণমাধ্যম চট্টগ্রাম-বিভাগ জাতীয় লিড নিউজ সম্পাদকীয় সারাদেশে

নারী ও শিশু নির্যাতন সভ্য সমাজের বর্বরবার্তা

মোহাম্মদ ওমর ফারুক দেওয়ানঃ দেশে নারীর প্রতি হিংসতা, বিশেষ করে ধর্ষণ, হত্যা ও যৌন নিপীড়নসহ পারিবারিক নির্যাতন উদ্বেগ জনক হারে বাড়ছে। ক্ষমতা বলয়ের কাছাকাছি থাকা দুর্বৃত্তরা এ ঘটনা বেশি ঘটাচ্ছে। এটি এখন অনেক পরিবারের স্ত্রী, বোন ও কন্যা সন্তানদের রক্ষায় আতংকের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এক মুহুর্তও চোখের আড়াল করা যাচ্ছে না, আড়াল হলেও আতংকের মধ্যে থাকতে হচ্ছে যে কখন তারা নিরাপদে ঘরে ফিরবেন।

বেসরকারি সংস্থা আইন ও সালিশকেন্দ্র (আসক) এ বছরের জানুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত আট মাসের মানবাধিকার লঙ্ঘনের সংখ্যাগত প্রতিবেদনে বলেছে-এ সময়কালে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৮৮৯জন নারী, যার মধ্যে একক ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ৬৯২ জন এবং সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১৯২ জন। এদের মধ্যে ধর্ষণের পর হত্যার শিকার হয়েছেন ৪১জন এবং আত্মহত্যা করেছেন ৯জন নারী। এসবের মধ্যে মাত্র ১২১ টি ক্ষেত্রে মামলা হয়েছে।

সংস্থার হিসাব অনুযায়ী জানুয়ারি-আগস্ট সময়ে গৃহ নির্যাতন হয়েছেন ৩৯৭ জন নারী যার ৩৪ জন শিশু। এর মধ্যে হত্যা করা হয় ২৫৩ জনকে। এ সময়ে ২৯ জনগৃহকর্মী বিভিন্ন ভাবে নির্যাতিত হয়েছেন। ১০৭ জন নারীকে যৌতুকের জন্য নির্যাতন করা হয়। এর মধ্যে ৫৫ জনকে হত্যা করা হয়। ১৭ জন নারীকে এসিডে ঝলসে দেওয়া হয়। এ সময়ে ৯৯০ জনশিশু বিভিন্ন ভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছে যার মধ্যে ৪০৮ জন শিশুকে হত্যা করা হয়। সরকারি হিসেবে হয়তো কিছুকম-বেশি হতে পারে। আবার অনেক ঘটনা আমাদের লোকচক্ষুর আড়ালেও থেকে যায়।

নারী ও শিশু নির্যাতনমূলক অপরাধ কঠোর হাতে দমনের উদ্দেশ্যে সরকার ২০০০ সালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন প্রণয়ন করেছে। এতে বলা হয়েছে এসিড নিক্ষেপের মাধ্যমে নারী ও শিশুকে ঝলসে দেওয়ার শাস্তি মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং একলক্ষ টাকা জরিমানা। অন্যান্য ভাবে নারী নির্যাতনের শাস্তি জরিমানাসহ সাত থেকে চৌদ্দর ছরের কারাদন্ড। নারী ও শিশু পাচারের শাস্তি সাত বছর কারা দন্ড থেকে মৃত্যুদন্ড পর্যন্ত হতে পারে। নারী ধর্ষণের শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও অর্থদন্ড। যৌতুকের শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও অর্থদন্ড।

আইনের এমন কঠোর শাস্তি বিধানের পরও দেশে নারী ও শিশু নির্যাতনের হার কমছেনা কেন, এর উত্তর খোঁজা জরুরি। যথাযথ আইন প্রয়োগের মাধ্যমে অপরাধীর কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করা গেলে অপরাধের মাত্রা কমে আসবে- এতে কোনো সন্দেহ নেই। একই সঙ্গে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ সমাজের সর্বত্র জনসচেতনতা সৃষ্টির কার্যকর উদ্যোগ নিতে হবে।
দেশের জন সংখ্যার প্রায় অর্ধেক নারী। ১৯৭২ সালে নব গঠিত রাষ্ট্র বাংলাদেশের সংবিধানে নারীর মানবাধিকার ও মৌলিক স্বাধীনতা নিশ্চিত করে তদানীন্তন সরকার নারী উন্নয়নকে অগ্রাধিকার প্রদান করে। সরকার নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে বিভিন্ন ধরণের পদক্ষেপ নিয়েছেন।

এইতো সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪১ সাল নাগাদ কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশ গ্রহণ ৫০ শতাংশে উন্নীত করার অঙ্গীকারের পাশাপাশি কোভিড–১৯ মহামারির প্রেক্ষাপটে তাদের চাকুরি রক্ষার আহ্বান জানিয়েছেন। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নারীর সমতা, ক্ষমতায়ন ও অগ্রগতি নিশ্চিত করতে আন্তর্জাতিক সমপ্রদায়ের অঙ্গীকার নবায়ন ও প্রচেষ্টা জোরদারের ও আহ্বান জানান। নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে উচ্চ পর্যায়ের এক ভার্চুয়াল বৈঠকে তিনটি বিষয় তুলে ধরতে গিয়ে তিনি ১ অক্টোবর এ আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার ২০১১ সালে একটি প্রগতিশীল নারী উন্নয়ন নীতিমালা প্রণয়ন করেছে। জাতীয় সংসদে নারীদের জন্য সংরক্ষিত আসন ৫০টিতে উন্নীত করা হয়েছে। সংসদ নেতা, সংসদীয় উপনেতা, বিরোধী দলীয় নেত্রী ও স্পিকার নারী। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায় ৩০ শতাংশ আসন মহিলাদের জন্য নির্ধারণ করে রাখা হয়েছে। আর জনসেবাতে নারীর প্রতি নিধিত্ব বাড়ানোর জন্য বিশেষ বিধান রাখা হয়েছে।

তিনি বলেন, নারীরা এখন উচ্চ আদালতের বিচারক, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি, মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং আরও অনেক কিছু হয়ে উঠছেন। জেন্ডার বাজেটিং, মাইক্রো ফাইনান্স এবং অনুরূপ উদ্যোগ গুলো মহিলাদের আর্থিক অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করেছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, নারীদের ক্ষেত্রে সরকারের বিনিয়োগ সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রে সমৃদ্ধ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেসুফল বয়ে আনছে। আজ ২ কোটি নারী কৃষি, শিল্প ও সেবা খাতে নিয়োজিত রয়েছেন। ৩৫ লাখের ও বেশি নারী তৈরি পোষাক খাতে কাজ করছেন, যা আমাদের বৃহত্তম রফতানি আয়ের ক্ষেত্র।

শেখ হাসিনা বলেন, এ পর্যন্ত প্রায় ১ হাজার নারী সেনা ও পুলিশ কর্মকর্তা জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি বলেন, আমাদের নারীরা বাধা ভাঙছে এবং পেশায় সফল হচ্ছেন যা আমাদের পূর্ববর্তী প্রজন্ম কখনই কল্পনা করতে পারতোনা । প্রধানমন্ত্রী বলেন, নারীর ক্ষমতায়নে সাফল্যের কারণে বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী অনেক প্রশংসা অর্জন করেছে।

এ থেকে অনুধাবন করা যায় শুধু রাষ্ট্রীয় পর্যায়েই নয়, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ও নারীর অধিকার ও উন্নয়ন আন্দোলনের অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশ জাতিসংঘ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সম্মেলন ও কনভেনশনে অংশগ্রহণ করেছে এবং সমর্থন প্রদান করেছে। এ প্রেক্ষাপটে দেশে নারী ও শিশুদের নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হওয়ার বিষয়টি মেনে নেয়া যায় না। বস্তুত নারী নির্যাতন রোধে আইনের যথাযথ প্রয়োগ যেমন জরুরি, তেমনি জরুরি নারীর প্রতিসমাজের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন। নারী কেমা, বোন, স্ত্রী-এই দৃষ্টিভঙ্গীতে দেখতে হবে। নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা রোধে আরও কার্যকর প্রতিরোধ কাঠামো গড়ে উঠবে-এমনটাই প্রত্যাশা।

পিআইডি ফিচার
লেখকঃ উপপ্রধান তথ্য অফিসার
আঞ্চলিক তথ্য অফিস, পিআইডি, চট্টগ্রাম।

Categories
গণমাধ্যম জাতীয় ঢাকা-বিভাগ লিড নিউজ সারাদেশে

১৮ আসনের সাধারন জনগনের প্রতি আওয়ামী নেতা এ কিউ রাহাতের আহব্বান

ডেক্স রিপোর্টঃজননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে , উত্তরাকে একটি আধুনিক ও আদর্শ নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে এলাকার সাধারন মানুষের প্রতি উদাত্ত আহব্বান জানিয়ে আওয়ামী নেতা এ কিউ রাহাত বলেন, রাজধানীর ১৮ আসনের উপনির্বাচন কে ঘিরে আওয়ামী লীগের রাজনৈতিক অঙ্গনে তৃণমূল নেতৃবৃন্দের সক্রিয়তা জনগনকে নির্বাচনী হাওয়ায় হাবিব ভাইয়ের নৌকার আওয়াজ শোনাচ্ছে।আমরা সাধারন মানুষের পাশে আছি থাকবো সারা জীবন। ঢাকা উত্তর মহানগরের উত্তরা পূর্ব থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক রাহাত ইতিমধ্যেই তৃণমূলে গণসংযোগের কার্যক্রম শুরু করেছেন।

পরিচ্ছন্ন আওয়ামী নেতা রাহাত ১৮ আসনের সাধারণ নগরবাসীর প্রতি বিনীত অনুরোধ জানিয়ে নৌকার প্রার্থী হাবিব হাসান ভাইকে নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করতে উদাত্ত আহব্বান জানিয়েছেন।তিনি বলেন, নৌকার মাঝি হাবিব হাসান ভাইয়ের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করছি।

আমি উত্তরা উত্তরার তৃনমূলের নেতাকর্মীদের পক্ষথেকে জননেতা হাবিব ভাইকে আন্তরিক অভিনন্দন ও সেই সাথে নগরবাসীকে নৌকা মার্কায় ভোট দিতে অনুরোদ জানাই

Categories
অপরাধ আইন-আদালত এক্সক্লুসিভ গণমাধ্যম জাতীয় ময়মনসিংহ-বিভাগ লিড নিউজ সারাদেশে

জামালপুরে বিল্ডিংয়ের দেয়াল ধসে, নিহত-১

মোঃ রুবেল মিয়াঃ জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় নির্মাণাধীন বিল্ডিংয়ের দেয়াল ধসেপড়ে একজন নিহত হয়েছে। আজ রবিবার (৪ অক্টোবর) সকাল ৮টার দিকে উপজেলার শ্যামপুর ইউনিয়নের আমডাঙ্গা গ্রামে ঘটনাটি ঘটে।ঘঠনায় এলাকায় শুকের ছায়া নেমে এসেছে।

এলাকাবাসী জানায়, আমডাঙ্গা গ্রামে সকালে আজগর আলীর স্ত্রী ফাতেমা বেগম (৭৫)পাশ্ববর্তী তার ভাতিজা আ: রাজ্জাকের বাড়িতে বেড়াতে যান। আ: রাজ্জাকের স্ত্রী মালেকা বেগম (৫০) এবং ফাতেমা রান্না ঘরে বসে গল্প করার সময় হঠাৎ পাশে থাকা নবনির্মিত বিল্ডিংয়ের দেয়াল ধসে তাদের উপর পড়ে।

তাৎক্ষনিক স্থানীয়রা দ্রুত তাদের উদ্ধার করে মেলান্দহ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার ফাতেমাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় আহত মালেকা বেগম মেলান্দহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন বলে জানাগেছে।

Categories
অপরাধ আইন-আদালত এক্সক্লুসিভ গণমাধ্যম জাতীয় ময়মনসিংহ-বিভাগ লিড নিউজ সারাদেশে

শেরপুরে ডাকাতির প্রস্তুতি কালে অস্ত্রসহ ৪ ডাকাত গ্রেফতার

মোঃরাজন মিয়া বিভাগীয় বিশেষ প্রতিনিধিঃশেরপুর জেলার সদর উপজেলার শেরপুর-জামালপুর আঞ্চলিক সড়কের মুকসুদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মুখে ৪ অক্টোবর রোববার ভোর রাতে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ৪ ডাকাতকে গ্রেফতার করেছে শেরপুর সদর থানা পুলিশ।

ধৃত ডাকাতরা হলো- সদর উপজেলার চরপক্ষীমারী ইউনিয়নের ডাকপাড়া গ্রামের আইনুল হকের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন (১৯), শহিদুল ইসলামের ছেলে নিরব (২০) ফজলুল হকের ছেলে জাহেদুল ইসলাম (২০) ও খাসপাড়া গ্রামের মমিন মিয়ার ছেলে সবুজ মিয়া (১৯)। শেরপুর সদর থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) শরীফ উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্সসহ শনিবার রাতে শেরপুর-জামালপুর আঞ্চলিক সড়কে নৈশ্যকালীন কর্তব্যরত অবস্থায় এক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মুকসুদপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মুখে একদল ডাকাত ডাকাতীর প্রস্তুতি করছে এসময় সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থল গিয়ে ওই ৪ ডাকাত রিয়াজ উদ্দিন, নিরব, জাহেদুল ইসলাম ও সবুজকে রামদা, ছোরা ও রশিসহ তাদের আটক করা হয়। এদিকে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অজ্ঞাতনামা ৪/৫ জন ডাকাত পালিয়ে যায়।

এব্যাপারে শেরপুর সদর থানায় ডাকাতির প্রস্তুতির একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন নিশ্চিত করেছেন। ৪ অক্টোবর রোববার দুপুরে বিজ্ঞ আদালতে ধৃত ডাকাতদের সোপর্দ করে পুলিশী হেফাজতে এনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ড চেয়েছে মামলার তদন্তকারী অফিসার।

Categories
অপরাধ আইন-আদালত এক্সক্লুসিভ গণমাধ্যম চট্টগ্রাম-বিভাগ জাতীয় লিড নিউজ সারাদেশে

নোয়াখালীতে গৃহবধূকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন।

বিবিসিনিউজ২৪,ডেস্কঃ নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার একলাশপুর ইউনিয়নে অনৈতিক কাজের অপবাদ দিয়ে এক নারীকে (৩৬) সমস্ত শরীর বিবস্ত্র করে নির্যাতন করেছে একদল যুবক। নির্যাতনকারীদের বারবার বাবা ডেকেও শেষ রক্ষা হয়নি ওই নারীর।

আজ রোববার দুপুর থেকে নির্যাতনের এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হলে জেলায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। টনক নড়ে প্রশাসনের। ঘটনায় জড়িত থাকা সন্দেহে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আবদুর রহিম (২৪) নামের এক যুবককে আটক করেছে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে একলাশপুর থেকে আবদুর রহিমকে আটক করা হয়। তিনি জয়কৃষ্ণপুর গ্রামের শেখ আহম্মদ দুলালের ছেলে। তিনি স্থানীয় দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ারের সেকেন্ড ইন কমান্ড বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এদিকে নির্যাতনকারী সন্ত্রাসীদের ভয়ে ঘরে তালা দিয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে গেছেন নির্যাতিত নারী ও তার পরিবারের লোকজন। তার স্বজনদের কাছ থেকেও কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

জানা গেছে, গত তিন বছর আগে ওই নারীর বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিনের মধ্যে তার স্বামী আরেকটি বিয়ে করলে তাদের মধ্যে যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। গত ২ সেপ্টেম্বর রাতে আগের স্বামী ওই নারীর সঙ্গে দেখা করতে তার ঘরে প্রবেশ করেন। বিষয়টি দেখতে পায় স্থানীয় মাদক ব্যবসায়ী ও দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার। গতকাল রাত ১০টার দিকে দেলোয়ার তার লোকজন নিয়ে ওই নারীর ঘরে প্রবেশ করেন এবং পর পুরুষের সাথে অনৈতিক কাজ করেছে বলে অভিযোগ এনে তাকে মারধর শুরু করেন। একপর্যায়ে পিটিয়ে নারীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারন করা হয়।

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ১ মিনিট ৩৮ সেকেন্ডের ভিডিওটিতে দেখা যায়, নির্যাতনকারীদের মধ্যে এক যুবক নারীর পরনে থাকা জামা কাপড় টেনে-হিঁচড়ে সম্পূর্ণ খুলে ফেলে। এ সময় ওই নারী বিছানার ছাদর, তোষক, খাটের ওপর থাকা বিভিন্ন কাপড় দিয়ে নিজের দেহ ঢেকে দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু নির্যাতনকারীদের মধ্যে কয়েকজন চারদিক থেকে কাপড়গুলো টেনে সরিয়ে দেয়। এক যুবক নারীর মুখে বারবার লাথি মারে। একজন তার মুখ ও বুকের বিভিন্ন স্থানে কামড় দেয়। এক যুবক নারীর গোপনাঙ্গে বারবার হাত দেয় ও আঘাত করে। আরেক যুবক তার গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে। নির্যাতনকারীদের বারবার বাবা ডেকেও রক্ষা পাননি ওই নারী।

ভিডিওটি দেখে একাধিক ব্যক্তি জানান, স্থানীয় দেলোয়ার বাহিনীর প্রধান দেলোয়ার ও তার সেকেন্ড ইন কমান্ড বাদল, কালাম, সাইফুদ্দিন, রহিম ও সুমনসহ ৬-৭ ওই নারীর ওপর এ নির্যাতন চালিয়েছে। নির্যাতনকারী দেলোয়ার ও তার বাহিনীর লোকজনের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

বেগমগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হারুনুর রশিদ চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভিডিও দেখে পুলিশ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে আব্দুর রহিম নামের নির্যাতনকারী দলের এক সদস্যকে আটক করা হয়েছে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আবদুর রহিম ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে।’

নোয়াখালী পুলিশ সুপার মো. আলমগীর হোসেন বলেন, ‘ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের মধ্যে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকিদেরকে আটকের চেষ্টা চলছে। এ নেক্কারজনক ঘটনার সঙ্গে জড়িতরা যতই ক্ষমতাধর হোক না কেন, তাদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি প্রদান করা হবে।সূত্রঃ আমাদের সময়।