1. seopay01833@gmail.com : Reporter : Reporter
  2. fhbadshah95@gmail.com : MJHossain : M J Hossain
  3. g21@exnik.com : isaac10j54517 :
  4. Janet-Baader96@picklez.org : janetbaader69 :
  5. tristan@miki8.xyz : katherinflower :
  6. makaylafriday74@any.intained.com : makaylafriday8 :
  7. mdrakibhasan752@gmail.com : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. g39@exnik.com : meredithbriley :
  9. muhibbbc1@gmail.com : Muhibullah Chy : Muhibullah Chy
  10. olamcevoy@baby.discopied.com : olamcevoy1234 :
  11. g2@exnik.com : roseannaoreily4 :
  12. b13@exnik.com : sebastianstanfor :
  13. g29@exnik.com : tangelamedina :
  14. g24@exnik.com : teenaligar6 :
  15. b15@exnik.com : xugmerri6352 :
  16. g16@exnik.com : yzvhildegarde :

শনিবার, ১১ Jul ২০২০, ১০:২২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ব্রেকিং নিউজ :
চট্টগ্রামসহ ৪ জেলায় পশুর হাট না বসানোর সুপারিশ হাটে নয়, গাজীপুরে পশু বিক্রি অনলাইনে বিলাইছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন দৈনিক গিরিদর্পণ পত্রিকার সম্পাদকের জন্মদিনে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের শুভেচ্ছা। নান্দাইলে অসহায় দু:স্থ মানুষের মাঝে ঈদ সামগ্রী ও নগদ অর্থ বিতরণ নলছিটিতে নিখোঁজের ২দিন পর স্কুলছাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার ১৪ দলের নতুন মূখপাত্র’র সু-স্বাস্থ্য ও সফলতা কামনায় দোয়া ও মিলাদ পরকিয়ার জেরে প্রবাসীর স্ত্রী কথিত প্রেমিক ফুপাতো ভাইয়ের হাত ধরে উধাও র‌্যাব-১ এর হাতে এক ছিনতাইকারী আটক সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম এমপি’র গভীর শোক
মেয়ের কান্না দেখে অঝোরে কাঁদলেন পিতা

মেয়ের কান্না দেখে অঝোরে কাঁদলেন পিতা

Advertisements

Print Friendly, PDF & Email

বিবিসিনিউজ২৪,ডেস্কঃ করোনাযুদ্ধে লোহাগাড়া উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক ফজলে এলাহি আরজু।

আদুরে মেয়ের থেকে দূরে আছেন দুই মাসের বেশি সময়। আজ অল্প সময়ের জন্য ও চাইলে মেয়ে বাবার সাথে সাক্ষাত করতে পারে না । তবে উনার মেয়ে আছে চট্রগ্রামে শহরে উনার বাসায় আর উনি আছেন তার গ্রামের বাড়ি চুনতিতে….!

পাঁচ বছরের ছোট্ট ইফরা মণি।তের মাস বয়সে ইফরা মা হারায়।তার পর থেকে সে দাদী,বাবা আর ফুফুর সাথে আছে। প্রত্যেক দিন শেষে আশা করে তার বাবা তাকে দেখতে আসবে। তারপর বাবার সঙ্গে খুন-সুটিতে মেতে উঠবে। বাবার সঙ্গে নানা খেলায় মেতে ওঠা। বাবার গলা জড়িয়ে ঘুমিয়ে থাকা। এগুলোই ছিল হাসি-খুশি ইফরার’র নিয়ম। বাবার সঙ্গে মেয়ের এই হৃদ্যতা অনেক দিন নেই। কারণ, বাবা তাকে ছেড়ে মানুষ বাঁচানোর যুদ্ধে। বাবা-মেয়ের মাঝখানে যেন এপার-ওপার তারকাঁটা। কারণ, বাবা যে যুদ্ধে আছেন, সেখান থেকে একেবারে বিজয়ী না হওয়া পর্যন্ত মেয়ের কাছে যাওয়া যাবে না।

ইফরার বাবা ফজলে এলাহী আরজু। এলাকার মানুষদের রক্ষায় ইফরাসহ পরিবার-পরিজন দূরে রেখে আরজু নেমে পড়েন মানুষ বাঁচানোর যুদ্ধে। করোনাভাইরাস ঠেকানোর লড়াইয়ে গিয়ে আদুরে মেয়েটির মায়াও ছাড়তে হয় তাকে।

অপরদিকে, ছোট্ট ইফরা কী আর এতসব বোঝে! সে শুধু বোঝে, তার বাবা দ্রুতই ফিরবে। আবার তাকে বুকে জড়িয়ে নেবে। গালে চুমু খাবে। খেলা আর খুনসুটিতে মেতে উঠবে বাবা-মেয়ের আদুরে প্রাঙ্গণ।

আজ যখন মেয়ের কাছে যাওয়ার জন্য নিজের মন খুব কাদে তার পর ও নিজেকে খুব শক্তভাবে সামলানোর চেষ্টা করেন ফজলে এলাহী আরজু ভাই। কিন্তু শেষপর্যন্ত তিনি যখন সারাদিন নিজের কাজ শেষ করে বাসায় ফিরে রাতে যখন ঘুমাতে যান, তখন তার মেয়ের কথা মনে পড়লে তখন আর নিজের মনকে আটকে রাখতে পারেন না নিজের অজান্তে চোখ দিয়ে জল গড়িয়ে পড়ে।

তারপর আরজু ভাই তার মেয়েকে ফোন করে মেয়ের সাথে কথা বলে নিজের মনকে হালকা করেন। মেয়ের সাথে যখন মোবাইলে কথা বলে তখন মেয়ে বাবাকে বলে, বাবা তুমি কেমন আছ, বাবা ভাত খেয়েছো ,বাবা তুমি বাইরে বের হলে মার্কস পড়বে মনে করে, বাবা তুমি আমার কাছে কখন আসবে আরো কত কথা বলে মেয়ে আর বাবা চুপ করে শুনে। আর যখন আরজু ভাই কল কেটে দিয়ে মোবাইল হাত থেকে রাখে তখন দেখি আড়ালে আরজু ভাইয়ে চোখ দিয়ে পানি বের হচ্ছে। এমনকি এই ঈদে মেয়েকে দেখতে মেয়ের কাছে যেতে পারে নাই তার বাবা আরজু ।

লোহাগাড়া উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন-আহ্বায়ক ফজলে এলাহী আরজুর নেতৃত্বে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকানোর ক্ষেত্রে ইতিমধ্যে চুনতি দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এলাকায় একজন করোনা-(কভিট-১৯) পজিটিভ পাওয়া গেলে তার সংস্পর্শে আসা সমস্থ লোকদের হোম কোয়ারাইন্টনে রাখে এবং এই কারণে এলাকায় আর করোনা বিস্তার লাভ করতে পারে নি। এর পেছনে আরজুর ভূমিকার বিষয়টি বারবার উঠে আসছে।

স্থানীয়রা বলছেন, আরজু শুরু থেকে তৎপর না হলে চুনতিতে কঠিন পরিণতি ভোগ করতে হতো। আরজু ভাইয়ের মরহুম পিতা মইনুল ইসলাম চৌধুরী হিরন (চেয়ারম্যান) ও চুনতির যেকোন কঠিন সময়ে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে। টিক তেমনি বাবার কাছ থেকে আরজু ভাই শিখে মানুষের বিপদে পাশে দাড়ানোর।তাই মানুষ বলে যেমন পিতার তেমন ছেলে। আরজুর কাজে কর্মে তার মরহুম পিতা মইনুল ইসলাম হিরনের ছায়া খুজে পাই।

বিশেষ করে তিনি করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের শুরুর দিকেই চট্টগ্রাম-১৫ (লোহাগাড়া-সাতকানিয়া) আসনের মাননীয় সাংসদ প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দীন নদভী এমপির নিজস্ব তহবিল থেকে বিপুল পরিমাণ ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে এসে তা এলাকার গরীব- মধ্যবিত্তদের মাঝে তা বিতরণ করেন। এ ছাড়া নিজের টাকায় বিভিন্ন মানুষদের সহযোগিতা করেন তিনি।

খুবই ছোঁয়াছে রোগ হওয়ায় করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে কাজ করতে গেলে পরিবার-পরিজন থেকে দূরে সরে যাওয়াই স্বাভাবিক। নিজের পরিবারকে সুরক্ষিত রাখতে আরজু দীর্ঘ দুই মাস ধরে পরিবার থেকে দূরে অবস্থান করছেন। ফলে তিনি বঞ্চিত রয়েছেন আদুরে কন্যার ভালোবাসা থেকেও। মেয়েও সমানভাবে বাবার স্নেহবঞ্চিত
এই মহান মানুষটির জন্য আপনারা সবাই দোয়া করবেন।

প্রিয় নেতা ফজলে এলাহী আরজু ভাই ভবিষ্যতে যেন এমন মহান কাজ নিয়ে এলাকার মানুষের পাশে থাকতে পারে এই প্রত্যাশা রাখি।

লেখক- Abdullah-al Fahad
সাবেক কর্মকর্তা-জাতিসংঘ বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচী
রোহিঙ্গা শরর্ণার্থী ক্যাম্প-কক্সবাজার

আপনার মতামত দিন
Your 250x250 Banner Code

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements



Advertisements
© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team