সোমবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২০, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ব্রেকিং নিউজ :
যশোর সাগরদাঁড়িতে জমে উঠেছে মধু মেলা বাঁশখালীতে লোহার পাইপবহনকারী গাড়ী উল্টে গ্যাসলাইনে কর্মরত ১শ্রমিক নিহত ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে ভুমি কর্মকর্তা মোহাসিন সমায়িক বরখাস্ত কেশবপুরের গৌরিঘোনায় কমিউনিটি সংলাপ বৈষম্য নিরসন সাম্প্রদায়িক উন্নয়নের লক্ষ্যে বন্ধুনীড় সামাজিক সংগঠনের ফ্রি ব্লাড ক্যাম্পেইন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত মির্জাবাজার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সম্পন্ন সিসিটিভি ক্যামেরা ও শহর পুলিশ ফাঁড়ি উদ্বোধন করেন আইজিপি তেঁতুলিয়ায় পাথর শ্রমিকদের বিক্ষোভ পুলিশ ও জনতার মধ্যে সংঘর্ষ টাঙ্গাইলের নাগরপুরে এক মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার মিরসরাইয়ে ওয়াহেদপুর ইউনিয়নে সাংবাদিক এম মাঈন উদ্দিনের বাড়িতে ডাকাতি!
আদালতে ঘাতক সাইমনের স্বীকারোক্তি, একটি মোবাইলের জন্যই নির্মম ভাবে হত্যা করা হয় স্কুল ছাত্র ইসমাইলকে

আদালতে ঘাতক সাইমনের স্বীকারোক্তি, একটি মোবাইলের জন্যই নির্মম ভাবে হত্যা করা হয় স্কুল ছাত্র ইসমাইলকে

Advertisements

অঞ্জন রায় জেলা প্রতিনিধি হবিগঞ্জ ঃ নাটক বানিয়ে ফেসবুকে দেয়ার কথা বলে খোয়াই নদীর চরে নিয়ে যাওয়া হয় ইসমাইলকে। পরে সেখানে হাত-পা বেধে হত্যার পর লাশ ফেলে দেয়া হয় নদীতে

সৌদি আরব প্রবাসী ফারুক মিয়া শখ করে একটি দামী মোবাইল দিয়েছিলেন প্রিয় সন্তান ইসমাইল হোসেনকে। চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র ইসমাইল এই ফোন পেয়ে সীমাহিন আনন্দিত হয়। বিভিন্ন স্থানে গিয়ে ছবি তোলা এবং ভিডিও করে তা সবাইকে দেখানোর মাঝেই ছিল ইসমাইলের আনন্দ। আর তার এই শখকে পূজি করেই প্রতিবেশী শাহরিয়ার হোসেন ওরপে সাইমন তাকে হত্যা করে। বুধবার বিকেলে সাইমন হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নুরুল হুদার আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে এই হত্যার কথা স্বীকার করে। এর আগে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টায় সাইমনকে তার বাড়ী থেকে হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) রবিউল ইসলাম এর নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করা হয়। সে পুলিশের কাছেও হত্যার কথা স্বীকার করে।

বুধবার রাতে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা জানান, তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে অতি অল্প সময়ে ইসমাইল হোসেন হত্যার রহস্য উদঘাটন করতে আমরা সম্ভব হয়েছি। হবিগঞ্জ সদর উপজেলার তেঘরিয়ায় স্কুলছাত্র ইসমাইল হোসেন (১২) এর বাবা সৌদি আরব প্রবাসী ফারুক মিয়া ২ মাস পূর্বে ছেলের জন্য ২০/২২ হাজার টাকা মূল্যের একটি লেনোভা কোম্পানীর স্মার্ট ফোন প্রেরণ করেন। ইসমাইল সেটি দিয়ে ছবি ও ভিডিও তুলে সবাইকে দেখাত। মোবাইলটির প্রতি লোভ হয় ইসমাইলের পাশের বাড়ী কদর আলীর পুত্র ও হবিগঞ্জ শহরের জে কে এন্ড এইচ কে হাই স্কুলের ১০ম শ্রেণীর ছাত্র সাইমন (১৫) এর। ইসামাইল এর ছবি তোলার নেশাকে কাজে লাগিয়ে গত ১০ জানুয়ারী বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সাইমন ইসমাইলকে বলে তাকে দিয়ে সে একটি নাটক বানাবে। এই নাটক ফেসবুকে দিলে যদি ১০০ লাইক পায় তাহলে ইসমাইল ৫০ হাজার টাকা পাবে। শিশু ইসমাইল সরল বিশ্বাশের তাতে রাজী হয়। ১০ জানুয়ারী সাড়ে ৩টায় সাইমন ইসমাইলকে নিয়ে বের হয়ে হবিগঞ্জ শহরের ২নং পুল এলাকায় এসে একটি সিএনজি-অটোরিক্সাতে করে সদর উপজেলার বৈদ্যার বাজার এলাকায় যায়। সেখান থেকে পায়ে হেটে খোয়াই নদীর পার দিয়ে ছবি তুলতে তুলতে এবং ভিডিও করে চরহামুয়া এলাকায় যায়।

এর মাঝে সন্ধ্যা হয়ে আসলে খোয়াই নদীর চরে গিয়ে সাইমন নাটকের কথা বলে ইসমাইলের হাত-পা বেধে ফেলে। নাটক মনে করে ইসমাইল কোন বাধা দেয়নি। হাত পা বেধে মুগুর দিয়ে সাইমন ইসমাইল এর মাথায় উপর্যুপরি আঘাত করলে ঘটনা স্থলেই তার মৃত্যু হয়। পরে লাশ নদীতে ফেলে সাইমন মোবাইল নিয়ে বাড়ীতে চলে আসে।

তিনি আরও জানান, পুলিশের আন্তরিক প্রচেষ্টায় দ্রুততম সময়ে আমরা চাঞ্চল্যকর এই ঘটনার রহস্য উদঘাটন করতে পেরেছি। আপাতত মনে হচ্ছে সাইমন ছাড়া আর কেউ হত্যাকান্ডে জড়িত নেই। তবে তদন্তে আরও কেউ আছে কি না তা জানা যাবে।

hostseba.com

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাতে নিহত স্কুলছাত্রের চাচা টেনু মিয়া বাদি হয়ে অজ্ঞাত ৭/৮জনকে আসামী করে হবিগঞ্জ সদর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

গত সোমবার দুপুর ১২ টায় স্থানীয় লোকজন তার লাশ দেখে সদর থানায় খবর দিলে ওসি মোঃ মাসুক আলীর নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশের সুরতহাল তৈরি করে সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করে। ইসমাইলের পিতা ফারুক মিয়া সৌদি আরব থেকে দেশে আসার পর মঙ্গলবার বিকেলে তার লাশ দাফন করা হয়।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

bbcnews24-mujib-borso

Advertisements

অনলাইন ভোটে অংশগ্রহন করুন




Advertisements

Our English Site

© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team