1. seopay01833@gmail.com : Reporter : Reporter
  2. fhbadshah95@gmail.com : MJHossain : M J Hossain
  3. g21@exnik.com : isaac10j54517 :
  4. Janet-Baader96@picklez.org : janetbaader69 :
  5. tristan@miki8.xyz : katherinflower :
  6. makaylafriday74@any.intained.com : makaylafriday8 :
  7. mdrakibhasan752@gmail.com : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. g39@exnik.com : meredithbriley :
  9. muhibbbc1@gmail.com : Muhibullah Chy : Muhibullah Chy
  10. olamcevoy@baby.discopied.com : olamcevoy1234 :
  11. g2@exnik.com : roseannaoreily4 :
  12. b13@exnik.com : sebastianstanfor :
  13. g29@exnik.com : tangelamedina :
  14. g24@exnik.com : teenaligar6 :
  15. b15@exnik.com : xugmerri6352 :
  16. g16@exnik.com : yzvhildegarde :

মঙ্গলবার, ০২ Jun ২০২০, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ব্রেকিং নিউজ :
আল্লামা হাশেমী হুযূর কেবলা আমাদের মাঝে আর নেই! সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী নাসিমের জন্য দোয়া চেয়েছেন দেওয়ান বেদারুল ইসলাম চট্টগ্রামে আরও ২০৮ জন নতুন শনাক্ত যে ঔষুধ সাধারণ মানুষ কিনতে পারবে না, সেটি আমিও নিবো না: ডা. জাফরুল্লাহ দুর্বৃত্তের থাবায় ক্ষতিগ্রস্ত আনারস চাষীর পাশে দাঁড়িয়েছে সেনাবাহিনী হালুয়াঘাটে আগুনে দগ্ধ প্রতিবন্ধি কিশোরীকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন ইউএনও ভাদগাঁও ওয়েলফেয়ার ট্রাষ্ট ইউ.কে এর সাংগঠনিক সম্পাদক মোহনের জন্মদিন আজ শিক্ষার আলো কোচিং সেন্টারের শতভাগ সাফল্য তেতুঁলিয়ায় চা শ্রমিকের ভুয়া তালিকা অনিয়মের অভিযোগ মৌলভীবাজার পৌর ঈদগাহের জন্য ১ কোটি ২৬ লক্ষ ৮০ হাজার টাকার ভূমি ক্রয়
প্রশাসনের নিরবতায় টেকনাফে শহীদ বেদী ও মুক্তিযোদ্ধা কবর স্থানের উপড়ে সুপারির হাট

প্রশাসনের নিরবতায় টেকনাফে শহীদ বেদী ও মুক্তিযোদ্ধা কবর স্থানের উপড়ে সুপারির হাট

Advertisements

Print Friendly, PDF & Email

ওসমান আবির,ককসবাজার(টেকনাফ)ঃ

দেশব্যাপী বধ্যভূমি, মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত সকল স্থান চিহ্নিত ও সংরক্ষনে উচ্চ আদালতের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও স্বাধীনতার ৪৮বছরে মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত টেকনাফের একমাত্র শহীদ মুক্তিযুদ্ধা কবরস্থানটি সংরক্ষণের কোন উদ্যোগ নিতে পারেনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। বিগত জোট সরকারের আমলে স্বাধীনতা বিরোধী স্থানীয় এক নেতা এই শহীদ কবর স্থানটি নিশ্চিহ্ন করতে ব্যর্থ চেষ্টার অভিযোগ রয়েছে। সর্বশেষ পৌরসভা সুপারীর হাট বসিয়েছে
শহীদ কবরস্থানটির উপর। এভাবে অযত্ন অবহেলায় মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিময় এই স্থানটি রক্ষনাবেক্ষনের উদ্যোগ না নিলে এইযাত্রায় নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে বলে অভিমত সুশীল সমাজ প্রতিনিধিদের।

তথ্য অনুসন্ধানে জানা গেছে, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার পুরাতন পল্লান পাড়া, হেচ্ছারখাল সদর হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকা, নাইট্যং পাহাড়ের পাদদেশকে মৃত্যুপুরী হিসাবে ব্যবহার করে ছিলো পাক বাহিনী। জেলার অনাচে কানাছে থেকে স্বাধীনতার পক্ষে সোচ্চার মুক্তিবাহিনীদের ধরে এনে নির্মম নির্যাতন করে হত্যা করা হতো এসব বধ্যভূমিতে।পত্যক্ষদর্শী অনেক স্থানীয় প্রবীনদের মতে তৎকালীন সময়ে এই বধ্যভূমীতে দিবা রাতে হত্যা করা হয়েছিলো অন্তত শতাধিক নিরীহ বাঙ্গালীকে।

টেকনাফের মুক্তিযুদ্ধ সংগঠক মরহুম মাষ্টার হাজী আব্দুস শুক্কুর তার জীবদ্দশায় স্মৃতিচারণ করেছিলেন- চকরিয়া কাকারার বীর মুক্তিযুদ্ধা শহীদ আব্দুল হামিদের মৃতদেহ স্বাধীনতা লগ্নে তার স্বজনরা এই বধ্যভূমি থেকে শনাক্ত করে নিয়ে গিয়েছিল। দেশ দখলদার মুক্ত হওয়ার পর ১৯৭১ সালের ১৮ই ডিসেম্বর ক্যাপ্টেন বিজয় সিং এর নেতৃত্বে মিত্রবাহিনী টেকনাফ আগমনের পরবর্তী মুক্তিযুদ্ধারা মিত্রবাহিনীর সহায়তায় ঐতিহাসিক এই বধ্যভূমিটি আবিস্কার করে ২৮ জন বীর মুক্তিযুদ্ধার ছিন্নভিন্ন দেহাবশেষ উদ্ধার করে পৌর কবরস্থান সংলগ্ন ঈদগাহ মাঠে সমাহিত করে ছিলো।

সেক্টর কমান্ডার ফোরাম টেকনাফ উপজেলা শাখার সেক্রেটারী মোজাম্মল হক জানান- তার উদ্যোগে স্বাধীনতার ১০ বছর পর ১৯৮১ সালে টেকনাফ অলিয়াবাদ বিত্তহীন সমবায় সমিতির উদ্যোগে এই শহীদ কবরস্থানের পাকা স্তম্ভ গুলো নির্মান করে চারপাশে পাকা বাউন্ডারী দ্বারা ৩টি স্তম্ভ নির্মান করা হয়ে ছিলো।যা এখনো কালের স্বাক্ষী হিসেবে অনেকটা ভঙ্গুর অবস্থায় দাড়িঁয়ে আছে। সেই থেকে কোন ব্যক্তি বা সরকারী প্রতিষ্টান এই কবরস্থানটি রক্ষায় এগিয়ে আসেনি। উল্টো দিকে অভিযোগ রয়েছে টেকনাফ পৌরসভার মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী এক প্যানেল মেয়র পৌর ঈদগাঁহ ময়দান সংস্কারের সময় বিভিন্ন অযুহাতে এই স্তম্ভ গুলো ভেঙ্গেফেলার চেষ্টা করলে স্থানীদের বাঁধার মুখে তা বিফল হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বিগত ১মাস ধরে পৌরসভার সুপারীর হাটটি পূর্বের জায়গা থেকে সরিয়ে উপজেলার একমাত্র শহীদ কবরস্থানটির উপর স্থানান্তর করেছে। শহীদ কবরের উপর দিয়ে হাটের লোক জনের জুতাপায়ে অবাধ নিত্য চলাচলে যেমন শহীদের আত্মাকষ্ট পাচ্ছে ঠিক তেমনি তার উপর সুপারির বস্তার স্তুপে প্রায় সর্বশেষ স্মৃতি চিহ্ন (স্তম্ভ) গুলোও নড়বড়ে হয়ে ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম হয়েছে। অথচ কবরের ৫০ ফিটের মধ্যে টেকনাফ থানা ও পৌরসভা কার্যালয়। দেখে মনে হয় এসবে যেনো কারো কিছু যায় আসেনা।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান- নতুন দায়িত্ব নেয়াতে আমি বিষয়টি সম্পর্কে অবগত ছিলামনা। সংশ্লিষ্টদের ডেকে এটি রক্ষনাবেক্ষনের প্র‍য়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করা হবে এবং সুপারীর হাটটি সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হবে।

বিষয়টি নিয়ে কক্সবাজার জেলা সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের সেক্রেটারী কমরেড গিয়াস উদ্দীন জানান,শহীদ কবরস্থানটি ইতিপূর্বে জেলার একটি প্রতিনিধি দল পরিদর্শন করেছে। এবিষয়ে সংশ্লিদের বরাবরে স্বারকলিপি দেয়া হবে। তাতে যদি হাট সরানো না হয় তবে জেলা সেক্টরসকমান্ডার ফোরাম আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষনা করবে।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements



Advertisements
© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team