শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধই বাজার অস্থিতিশীল হবার প্রধান কারন

ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধই বাজার অস্থিতিশীল হবার প্রধান কারন

Advertisements

জাহিরুল মিলন, নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পূর্ব ঘোষনা ছাড়াই ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় বেনাপোলসহ সারা বাংলাদেশে পেঁয়াজের বাজারে অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। বেনাপোল ও শার্শার বিভিন্ন বাজার ঘুরে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের কাছ থেকে সর্বশেষ জানা যায় যে, ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ার খবর ছড়িয়ে পড়ার পর বেনাপোলসহ যশোরের সব গুলো পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীল হয়ে ওঠেছে এবং পেঁয়াজের দাম প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে।

বেনাপোলের একজন পেঁয়াজ আমদানীকারক জানান, বাংলাদেশের পেঁয়াজের বাজার নির্ভর করে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানীর উপর। এখানে সিন্ডিকেটদেরও কোন হাত থাকে তবে এবার পূর্ব ঘোষনা ছাড়ায় ভারত থেকে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ায় বাজারে পেঁয়াজের মুল্য বেড়ে গেছে এখানে সিন্ডিকেটের কোন হাত নেই বলেও তিনি বলেন। তিনি আরো বলেন, যদি এই রপ্তানি দীর্ঘদিন যাবত বন্ধ থাকে তাহলে দীর্ঘ মেয়াদী প্রভাব পড়বে ভোক্তাদের উপর।

পেঁয়াজ আমদানী বন্ধের খবর পেয়ে বেনাপোল সহ যশোরে সর্বত্র ৫০ টাকার পেঁয়াজ সন্ধ্যা থেকে ১০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। দোকানীরা জানান, আগামীকাল থেকে পেঁয়াজের বাজার মুল্য আরো বেড়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানীর বন্ধ হওয়ায় আগামীকাল থেকে ১শ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনতে পাওয়া যাবে না কারণ যদি পেঁয়াজ বেশি দামে কিনতে হয় তাহলে তা আমাদেরকে বেশি দামে বিক্রি করতে হবে এতে ক্রেতাসাধারণ ক্ষতিগ্রস্ত হবে এবং বাজার লাগামহীন হয়ে যাবে।

এই রপ্তানি হঠাৎ বন্ধের কারণ জানতে চাইলে বেনাপোল কাস্টমসের সহকারী কমিশনার উত্তম চাকমা বলেন, ভারত পেঁয়াজের রপ্তানি বন্ধ করে দেবে খবরটি আমদানীকারক ও সিএন্ডএফ এজেন্ট এর কাছ থেকে আগেই জেনেছিলাম। বাংলাদেশ ভারতের কাছ থেকে পেঁয়াজের একটি বড় আমদানীকারক।ভোক্তাদের চাহিদা একটি বড় অংশ ভারত থেকে আমদানী করা হয়। বেনাপোল দিয়ে প্রতিদিন প্রায় একশত মেট্রিকটন পেঁয়াজ আমদানী হয়। সেই হিসেবে গত ১ মাসে প্রায় আড়াই হাজার মেঃটন পেঁয়াজ আমদানী হয়েছে। বাংলাদেশের পেঁয়াজের বাজার ভারতের উপর নির্ভরশীল।

পেঁয়াজ আমদানী বন্ধ হওয়ার কারনে বাজারে মুল্য বেড়ে যাবে এবং ভোক্তারাও ক্ষতিগ্রস্থ হবে। ভারত যদি পেঁয়াজ রপ্তানি করতে ইচ্ছুক থাকে তাহলে বাজার আবার স্বাভাবিক হয়ে যাবে এই অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির জন্য অন্য কারো হাত নেই বলেও তিনি জানান।

hostseba.com
আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements

অনলাইন ভোটে অংশগ্রহন করুন




Advertisements

Our English Site

© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team