1. seopay01833@gmail.com : Reporter : Reporter
  2. fhbadshah95@gmail.com : MJHossain : M J Hossain
  3. g21@exnik.com : isaac10j54517 :
  4. Janet-Baader96@picklez.org : janetbaader69 :
  5. tristan@miki8.xyz : katherinflower :
  6. makaylafriday74@any.intained.com : makaylafriday8 :
  7. mdrakibhasan752@gmail.com : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. g39@exnik.com : meredithbriley :
  9. muhibbbc1@gmail.com : Muhibullah Chy : Muhibullah Chy
  10. olamcevoy@baby.discopied.com : olamcevoy1234 :
  11. g2@exnik.com : roseannaoreily4 :
  12. b13@exnik.com : sebastianstanfor :
  13. g29@exnik.com : tangelamedina :
  14. g24@exnik.com : teenaligar6 :
  15. b15@exnik.com : xugmerri6352 :
  16. g16@exnik.com : yzvhildegarde :

রবিবার, ৩১ মে ২০২০, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিল

ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিল

ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিল
ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিল
Advertisements

Print Friendly, PDF & Email

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিবিসিনিউজ২৪ ডেস্ক: ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগ আদেশ জারি করে জানিয়েছে, বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে ভারত সরকার। অভ্যন্তরীণ চাহিদায় প্রভাব না পড়ার জন্য এই আদেশ জারি করা হয়েছে। পরবর্তী আদেশ না দেওয়া পর্যন্ত পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ থাকবে বলে আদেশে জানানো হয়েছে।

আজ রবিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেইন ট্রেড এর পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে- আজ থেকে সমস্ত ধরনের (টাটকা ও হিমায়িত) পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

ভারতে পেঁয়াজের ফলন হয় মূলত মহারাষ্ট্রের নাসিক, কর্ণাটকের মাকলি এলাকায়। সেখান থেকেই গোটা ভারতের পেঁয়াজ আমদানি করা হয়। আবার নাসিকের পেঁয়াজ রফতানি হয় প্রতিবেশি বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও আরব আমিরাতেও। চলতি বছরে অতি বর্ষণের কারণে কার্যত বন্যায় ভাসছে নাসিক ও মাকলি। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেখানকার বিঘার পর বিঘা কৃষি জমি। যার প্রভাব পড়েছে পেঁয়াজ চাষেও। ফলে তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে উৎপাদন। যার প্রভাব পড়েছে পাইকারি ও খুচরা বাজারে।

গত এক মাসে পেঁয়াজের দাম প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। প্রতি কিলোগ্রাম পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৮০ রূপিতে। আর সেই কারণে পেঁয়াজের এই মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতেই রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। দেশীয় বাজারে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধি ঠেকাতে গত ১৩ সেপ্টেম্বর ডিজিএফটি’এর পক্ষ থেকে টন প্রতি ন্যূনতম মূল্য বেধে দেয়া হয় ৮৫০ মার্কিন ডলার।

পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৯-২০ অর্থ-বছরে গত শেষ চার মাসে যত (টাটকা ও হিমায়িত) পরিমাণ পেঁয়াজ রফতানি হয়েছে-তার মূল্য ১৫৪.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। ২০১৮-১৯ অর্থ-বছরে ৪৯৬.৮২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের পেঁয়াজ রফতানি করে ভারত।

তবে এই বিষয়ে এখন পর্যন্ত কিছুই জানেন না বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. শফিকুল ইসলাম।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements



Advertisements
© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team