শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৩:৩৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
জার্মানির মসজিদ গুলোতে বোমার আতঙ্ক

জার্মানির মসজিদ গুলোতে বোমার আতঙ্ক

জার্মানির মসজিদ গুলোতে বোমার আতঙ্ক
জার্মানির মসজিদ গুলোতে বোমার আতঙ্ক
Advertisements

আন্তর্জাতিক, বিবিসিনিউজ২৪ ডেস্ক: বোমাতঙ্কের কারণে জার্মানির কমপক্ষে তিনটি মসজিদ খালি করে দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার ই-মেইলের মাধ্যমে জার্মানির বেশ কিছু মসজিদে বোমা হামলার হুমকি দেয়া হয়। এরপরেই বিভিন্ন মসজিদে নিরাপত্তার জন্য তল্লাশি চালায় পুলিশ।

সংবাদ সংস্থা আনাদোলুর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ জার্মানির বেভারিয়াতে দু’টি মসজিদ খালি করে দেয়া হয়েছে। ওই মসজিদের লোকজনের কাছে হুমকি দিয়ে মেইল পাঠানো হয়েছিল। একটি ডানপন্থি সংগঠন নামাজরত মুসলিমদের ওপর হামলা চালানোর হুমকি দেয়। তারা তাদের সদস্যদের জেল থেকে ছেড়ে দেয়ারও দাবি জানায়।

পেসিং এবং ফ্রেইমানের দু’টি মসজিদে তল্লাশি চালিয়েছে পুলিশ। তবে সেখানে সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি। অপরদিকে রাইন ওয়েস্টফেলিয়া রাজ্যের উত্তরাঞ্চলের ইসারলোন শহরের একটি মসজিদেও একটি ই-মেইল পাঠানো হয়।

মসজিদের নামাজের জায়গায় বোমা রাখা আছে বলে ওই ই-মেইলে হুমকি দেয়া হয়। তবে এই হুমকি ধাপ্পাবাজি ছাড়া আর কিছুই না। কারণ সেখানেও সন্দেহজনক কিছুই পাওয়া যায়নি।

মসজিদের ভেতরে প্রশিক্ষিত কুকুর দিয়ে তল্লাশি চালানোর পর সেগুলো খালি করে দিয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার জার্মানির কলোনি সিটিতে অবস্থিত সবচেয়ে বড় মসজিদেও একই ধরনের ই-মেইল পাঠিয়ে বোমা হামলা চালানোর হুমকি দেয়া হয়। কিন্তু এসবই ছিল ভুয়া।

hostseba.com

ডানপন্থি বিভিন্ন সংগঠনগুলো মুসলিমবিরোধী বেশ কিছু ভুল তথ্য প্রচার করায় সাম্প্রতিক সময়ে জার্মানিতে মুসলিমদের প্রতি হিংসাত্মক মনোভাব বেড়ে গেছে। মুসলিমদের প্রতি ঘৃণামূলক হামলার ঘটনাও বাড়ছে।

গত বছর, মুসলিমদের প্রতি ঘৃণামূলক ৮১৩টি অপরাধের রেকর্ড পেয়েছে জার্মানির পুলিশ। এর মধ্যে শারীরিকভাবে হেনস্তা, হুমকি দিয়ে চিঠি এবং মৌখিকভাবে আক্রমণের ঘটনাও ঘটেছে। এ ধরনের বেশ কিছু হামলায় ৫৪ জন মুসলিম নাগরিক আহত হয়েছেন।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements

অনলাইন ভোটে অংশগ্রহন করুন




Advertisements

Our English Site

© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team