বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ০২:২২ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
সুষ্ঠু তদন্ত চেয়ে বান্দরবানের রুমা ০২নং সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে স্মারকলিপি

সুষ্ঠু তদন্ত চেয়ে বান্দরবানের রুমা ০২নং সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে স্মারকলিপি

Advertisements

রুমা উপজেলা প্রতিনিধি : বান্দরবানের রুমা উপজেলার ২নং রুমা সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শৈমং মারমা(শৈবং) বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে বিভিন্ন উদ্বর্তন কর্মকর্তা বরাবরের ১১ জন সদস্য /সদস্যা প্রত্যক্ষ স্বাক্ষরের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন। তিনি রুমা উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি পদে একজন প্রভাবশালী নেতা ।

দলীয় বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে যে, তিনি বান্দরবান বান্দরবান পার্বত্য জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি তথা পার্বত্য জেলা পরিষদের সম্মানিত চেয়ারম্যানের খুবই নিকটতম লোক বলে জানা গেছে । তাই ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও চেয়ারম্যান পদে দ্বিতীয়বারের মতো দলীয় প্রতিক মাধ্যমে মনোনীত হয়েছেন বলে জানা গেছে ।

নিম্নে অভিযোগে ২০১৭ সালের ঈদুল আজহা ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য প্রদত্ত ভিজিএফ জিআর চাউল হইতে ০৭ মে:টন টাকা আত্বসাৎ, ২০১৮ইং সালের ঈদুল ফিতরের জন্য ও বন্যায়কবলীত দরিদ্র পরিবারের বরাদ্দকৃত ভিজিএফ চাউল হইতে ৮.১/২ মেট্রিকটন টাকা আত্বসাৎ আরো একই সালে একিই অনুদানের ভিজিএফ এর চাউল ১১.১/২ মে:টন জনগণের নিকট বিতরন না করে সম্পূর্ণ টাকা আত্বসাৎ করিয়াছেন বলে অভিযোগ পত্রের উল্লেখ করেছেন ।

প্রতিবছর এলজিএসপিআর বরাদ্দ হইতে ডিডি এল জিডি এফ এল ইউ.এন.ও ইঞ্জিনিয়ার, ইউপি সচিব অডিট নামে ২৫% টাকা ঠিকাদার /মেম্বার দের কতৃক গ্রহণ করে আসছে ,২০১৮-২০১৯ সালে এলজিএসপি কর্মসূচী আওতায় মেষ বরাদ্দ ৩৩ লক্ষ ৬১ হাজার টাকা হইতে কোন ইউপি সদস্য /সদস্যা প্রত্যক্ষ মতামত না নিয়ে নিজের ইচ্ছেমতো ভাগবন্টন করিয়াছেন, ২০১৫-২০১৬ সালে বিবি টেক্স বাবদ ১,৬০,০০০/ টাকাও আত্বসাৎ করিয়াছেন ।

আরো উক্ত ইউনিয়নের ভিজিডি উপকার ভোগীর সংখ্যা ৪৮৯জন প্রত্যেকের কাছে ৩০/ টাকা করে প্রতিমাসে আত্বসাৎ করে আসছে, টিআর কাবিখা/কাবিটা প্রকল্প হইতে মেম্বারদের নিকট ৫%টাকা করে আত্বসাৎ করিয়া থাকে, মন্ত্রনালয় হইতে প্রকল্প নেওয়া মিথ্যা আশ্বাস দিয়ে ইউপি সদস্য /সদস্যাদের নিকট হইতে ৫০০০ / (পাঁচহাজার) টাকা করে চাঁদা উক্তোলন করে নিচ্ছে ,সোলার প্যানেল দেওয়া নামে লক্ষ লক্ষ টাকা নেওয়া, ইউনিয়ন পরিষদের সরকারি সম্পত্তি ১ হাজার লিটার গাজী ট্যাংক, ইলেকট্রনিক মটর,২১ইঞ্জি রঙিন টিভি নিজ ঘরে ব্যবহার করে যাচ্ছে ।

hostseba.com

যাহা সরকারের সম্পদ আত্বসাৎ বটে। মুঠোফোনে ২নং স্বপন কর্মকার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন মেম্বার গণ অভিযোগ পরপরই মটর,টিভি, গাজি ট্যাংক পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেন । সাথে ১নং পাইন্দু ইউনিয়নের অফিস ভারা বাবদ ৪০,০০০/(চল্লিশ হাজার ) টাকা আত্বসাৎ করলেও সেটা ৩ জুলাই পর জমা করেছে বলে জানা গেছে। মেম্বারদের বেতন ভাতা উত্তোলনের সময়ও জনের প্রতি ৭০০/ (সাতশত ) টাকা আত্বসাৎ করিয়াছেন ।

অভিযোগের ভিত্তিতে আরো জানা গিয়েছে যে ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালনা করার কথা ইউনিয়ন পরিষদে ” সচিব” কিন্তু বিভিন্ন কৌশলগত দুর্নীতি আগ্রাসন করতে দফাদার দের মাধ্যমে কাজ করে বছর পর বছর ছাড়ছেন ,সচিব মাধ্যমে কাজ করালে যেন আত্বসাৎ করতে সুযোগ না থাকায় অন্যত্র সচিবকে বদলি ও সাসপেন্ড করার অপচেষ্টা চালিয়েছে বলে জানা গেছে । ইতিমধ্যেই শুনা গেছে, ৯ই জুলাই মঙ্গলবার আনুমানিক সকাল ১১.০০ ঘটিকার সময়ে ইউনিয়ন পরিষদ ভবনে রুমা থানার প্রতিনিধি হিসেবে সাব ইন্সপেক্টর এসআই মো: ফারুক নেতৃত্বের উপরোল্লেখিত অভিযোগ বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে বলে ৩নং ও ৯নং মেম্বার সূত্রে জানা গেছে ।

বর্তমানে অভিযোগকারী বৃন্দের প্রতিনিধি সাথে চেয়ারম্যানের মনোমালিন্য হওয়া নিজ নিজ দায়িত্ব পালনের জনগণের সম্পৃক্ত বজায় রাখতে যথেষ্ট বাধাগ্রস্থ হচ্ছে বলে মনে করছে সাধারণ জনগণ । তাই যতই তারাতারি সম্ভব নিরপেক্ষ সুস্থ তদন্তের মাধ্যমে সমস্যা সমাধান করতে জোর দাবি জানিয়েছেন অত্র ইউনিয়নের সদস্য /সদস্যা বৃন্দ ।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements

অনলাইন ভোটে অংশগ্রহন করুন




Advertisements

Our English Site

© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team