রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ১২:২৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ব্রেকিং নিউজ :
বিবিসিনিউজ২৪ এর ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন থাই ব্যবসায়ী মেয়ের পাত্র খুঁজছেন, দেবেন লাখো ডলার বেনাপোলে অভিযান চালিয়ে মাদকসহ ২ জন গ্রেফতার মধুপল্লী গেটে পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় দুর্ভোগ! কলারোয়ায় এসপি গোল্ডেন লাইন পরিবহনের সুপারভাইজারসহ আটক ৬ অবসর নিয়ে সময় চাইলেন মাশরাফি চট্টগ্রামে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ গৃহ পরিদর্শন করেন বিশ্ব সন্ত্রাস বিরোধী সংগঠন (ওয়াটো)-চট্টগ্রাম বিভাগের নেতৃবৃন্দ। ৯নং উত্তর পাহাড়তলী ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের শোক সভা ফুটবল মাঠ জবর দখলের প্রতিবাদে মানববন্ধন এলো বৃষ্টিভেজা শরৎ বাংলা ঋতু অনুযায়ী ভাদ্র-আশ্বিন দুই মাস শরৎকাল গণধর্ষণ মামলায় জামিন পেয়েই কিশোরীকে অপহরণ ‘আমি অনেক খুশি, যা মুখে প্রকাশ করার মতো না’-বুবলী
কমিটিতে পদ বঞ্চিতদের তোপের মুখে শোভন-রাব্বানী

কমিটিতে পদ বঞ্চিতদের তোপের মুখে শোভন-রাব্বানী

Advertisements

বিবিসিনিউজ২৪,ডেস্ক ঃ পদ বঞ্চিতদের তোপের মুখে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে থেকে ফেরত এসেছেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।

সোমবার বিকেলে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণার পর মধুর ক্যান্টিনে মারধরে আহতদের রাত পৌনে ১১টার দিকে দেখতে গেলে ঢামেকের জরুরি বিভাগের গেটে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় সেখানে আহতদের সঙ্গে থাকা শতাধিক নেতাকর্মীরা বাধা দেয়। প্রায় আধাঘণ্টা বাগ  বিতণ্ডার পর পিছু হটে শোভন-রাব্বানী।

এ সময় উভয় পক্ষের নেতা কর্মীরা পাল্টা-পাল্টি স্লোগান দিতে থাকে। মানবতার কথা বলে বোনদের ওপর হামলা কেন, বিচার চাই বিচার চাই, বিবাহিতরা কমিটিতে কেন, মানি না মানবো না, রাজাকার পুত্র কমিটিতে কেন, মানি না মানবো না, সন্ত্রাসীদের কালো হাত, ভেঙে দাও গুড়িয়ে দাও-বলে পদ বঞ্চিতরা স্লোগান দেয়।

অপর দিকে সভাপতি ও  সাধারণ সম্পাদকের পক্ষের কর্মীরা বিদ্রোহীদের কালো হাত ভেঙে দাও গুড়িয়ে দাও বলে পাল্টা স্লোগান দেয়।

শোভন ও রাব্বানী মেডিকেলের গেটে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদের পথ রুদ্ধ করে রোকেয়া হলের সভাপতি ডাকসুর ক্যাফেটেরিয়া সম্পাদক বিএম লিপি।

এ সময় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘রাজাকার পুত্র, বিবাহিত, অছাত্রদের কমিটিতে রেখেছেন, আমাদের মত ত্যাগীদের কেনো মূল্যায়ন করেননি।’

এ সময় রাব্বানী বলেন, ‘সামনে মূল্যায়ন করা হবে।’

এ সময় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শোভন বলেন, ‘সব কিছু বিবেচনা করা হবে। আমরা আহতদের দেখতে আসছি।’

এ সময় সাবেক কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাইফুদ্দিন বাবু বলেন, ‘ত্যাগী নেতাদের মারধর করে, কোন সিম্প্যাথি নেওয়ার জন্য এসেছেন। কোনোভাবেই এই নাটক করতে দেওয়া হবে না।’ পরে সভাপতি ও  সাধারণ সম্পাদক হাসপাতালে প্রবেশ না করে চলে যান।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements

অনলাইন ভোটে অংশগ্রহন করুন




Advertisements

Our English Site

© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team