1. seopay01833@gmail.com : Reporter : Reporter
  2. fhbadshah95@gmail.com : MJHossain : M J Hossain
  3. g21@exnik.com : isaac10j54517 :
  4. Janet-Baader96@picklez.org : janetbaader69 :
  5. tristan@miki8.xyz : katherinflower :
  6. makaylafriday74@any.intained.com : makaylafriday8 :
  7. mdrakibhasan752@gmail.com : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. g39@exnik.com : meredithbriley :
  9. muhibbbc1@gmail.com : Muhibullah Chy : Muhibullah Chy
  10. olamcevoy@baby.discopied.com : olamcevoy1234 :
  11. g2@exnik.com : roseannaoreily4 :
  12. b13@exnik.com : sebastianstanfor :
  13. g29@exnik.com : tangelamedina :
  14. g24@exnik.com : teenaligar6 :
  15. b15@exnik.com : xugmerri6352 :
  16. g16@exnik.com : yzvhildegarde :

সোমবার, ২৫ মে ২০২০, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
হোমওয়ার্ক না করায় ছাত্রকে ৭৩ বেত্রাঘাত করে শিক্ষক!

হোমওয়ার্ক না করায় ছাত্রকে ৭৩ বেত্রাঘাত করে শিক্ষক!

হোমওয়ার্ক না করায় ছাত্রকে ৭৩ বেত্রাঘাত করে শিক্ষক!
Advertisements

Print Friendly, PDF & Email

বিবিসিনিউজ২৪,ডেস্কঃ হোমওয়ার্ক না করায় নারায়ণগঞ্জে ইংরেজি মাধ্যমের স্কুলের এক ছাত্রকে ৭৩ বেত্রাঘাত করেছে নাজমুল নামের এক শিক্ষক। এ ঘটনায় আইসিটির ওই শিক্ষককে বহিষ্কার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চেঞ্জেস ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবকরা আলোচনার মাধ্যমে অভিযুক্ত ওই শিক্ষককে বহিষ্কারের এ সিদ্ধান্ত নেন।

জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে চেঞ্জেস স্কুলের চাঁদমারী ক্যাম্পাসে আইসিটি বিষয়ে হোমওয়ার্ক করে না আনায় ৭ম শ্রেণির ছাত্র সৈকত কুমার পালকে ৭৩ টি বেত্রাঘাত করে আহত করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় তাকে শহরের খানপুর সরকারি হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

পরে ঘটনা খতিয়ে দেখে যৌথ সিদ্ধান্তে আইসিটি শিক্ষক নাজমুলকে বহিষ্কার করার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

আহত শিক্ষার্থী সৈকত কুমারের বাবা সুরিথ কুমার পাল জানান, ‘ওই শিক্ষক হয়তো মানসিকভাবে অসুস্থ। কারণ কোনো সুস্থ মানুষ এমন কাজ করতে পারে না। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তে আমি সন্তুষ্ট। তাই এখন আর অন্য কোনো স্টেপে যাব না।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে স্কুলটির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী জিএম ফারুক বলেন, ‘আমাদের স্কুল যখন ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় ওই সময় থেকেই আমাদের বাচ্চাদের গায়ে হাত তুলে শাসন করতে শিক্ষকদের নিষেধ করা হয়। এই নিষেধাজ্ঞা থাকার পরেও কালকের এই ঘটনা অত্যন্ত দুঃখজনক।’

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements



Advertisements
© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team