বৃহস্পতিবার, ২৭ Jun ২০১৯, ১১:২৭ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ব্রেকিং নিউজ :
বিবিসিনিউজ২৪ এর ইফতার ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন থাই ব্যবসায়ী মেয়ের পাত্র খুঁজছেন, দেবেন লাখো ডলার রিফাত হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আটক ১ সমীকরন পাল্টে দিচ্ছে পাকিস্থান, টাইগারদের ওপর বাড়াল চাপ সুভাষ মল্লিক সবুজকে মাথায় রড দিয়ে আঘাত করে সন্ত্রাসীরা কোথায় গেল মানবতা, স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা ইউসুফ চৌধুরী আর নেই বাংলাদেশ পুলিশ উইমেন নেটওর্য়াক (BPWN) বার্ষিক ট্রেনিং কনফারেন্স অনুষ্ঠিত অধ্যক্ষের সহযোগীতায় রোজিনার দায়িত্ব নিল সন্দ্বীপ ১ গ্রুপ! চট্টগ্রামে অজ্ঞান পার্টির ২ সদস্য আটক চট্টগ্রামে ২৪০০ পিস ইয়াবাসহ আটক ৩ জামালপুরে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী সমাবেশ

২১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই!

২১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই!
২১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই!
Advertisements

ফিরোজ জোয়ার্দ্দার- সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার ২১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই কোন শহীদ মিনার। মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ওইসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অস্থায়ী শহীদ মিনার নির্মাণ করে দিবস গুলো পালন করে থাকেন। সেজন্য তরুন ছাত্র/ছাত্রীরা মুক্তিযুদ্ধার সঠিক ইতিহাস জানতে পারছেন না।

আবার অনেক প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব শহীদ মিনার না থাকায় পার্শ্ববর্তী শহীদ মিনারে সম্মিলিতভাবে পুষ্পমাল্য অর্পণ করে ওই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয় মিলিয়ে ২৪৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে ১৬০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৪৮টি মাধ্যমিক, ৩০টি মাদ্রাসা ও ৮টি কলেজ।

উপজেলায় ১৬০টি সরকারী ও নতুন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে শহীদ মিনার আছে ১২টিতে, ৪৮ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ২২ টিতে, ৩০ টি মাদ্রাসার মধ্যে ২টিতে এবং কয়েকটি কলেজে শহীদ মিনার আছে। দেয়াড়া কাশিয়াডাঙ্গা প্রথামিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম ছাত্র আনিছুর ও ছাবিহা নামের দুই শিক্ষার্থী জানান, বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার না থাকায় প্রায় ২ মাইল দুরে দেয়াড়া হাইস্কুলের শহীদ মিনারে গিয়ে ফুল দিয়ে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে হয়। সরকারের কাছে শহীদ মিনার নির্মাণের দাবী জানিয়েছেন তারা।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হামিদ জানান, গত দু’বছর পুর্বে শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের প্রকৌশল অধিদপ্তরে তালিকা পাঠিয়েছিলাম কিন্তু এখনো কোন সারা পাইনি। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আকবর হোসেন জানান, উপজেলার অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার নেই। তাই তরুন ছাত্র/ ছাত্রীরা মুক্তিযুদ্ধার সঠিক ইতিহাস জানতে বঞ্চিত হচ্ছেন।

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements



Advertisements
© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team