1. seopay01833@gmail.com : Reporter : Reporter
  2. fhbadshah95@gmail.com : MJHossain : M J Hossain
  3. g21@exnik.com : isaac10j54517 :
  4. Janet-Baader96@picklez.org : janetbaader69 :
  5. tristan@miki8.xyz : katherinflower :
  6. makaylafriday74@any.intained.com : makaylafriday8 :
  7. mdrakibhasan752@gmail.com : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. g39@exnik.com : meredithbriley :
  9. muhibbbc1@gmail.com : Muhibullah Chy : Muhibullah Chy
  10. olamcevoy@baby.discopied.com : olamcevoy1234 :
  11. g2@exnik.com : roseannaoreily4 :
  12. b13@exnik.com : sebastianstanfor :
  13. g29@exnik.com : tangelamedina :
  14. g24@exnik.com : teenaligar6 :
  15. b15@exnik.com : xugmerri6352 :
  16. g16@exnik.com : yzvhildegarde :

মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:১৪ অপরাহ্ন

সবার দৃষ্টি আকর্ষন:
বিবিসিনিউজ২৪ডটকমডটবিডি এর পেইজে লাইক করে মুহূর্তেই পেয়ে যান আমাদের সকল সংবাদ
ব্রেকিং নিউজ :
মাইসছড়িতে বাঙালী কৃষকের ফলন্ত কলা গাছ কাটায় থানায় জিডি ধোবাউড়ায় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির জরুরী সভা অনুষ্ঠিত বেনাপোলে ১৩ পিস স্বর্ণের বারসহ এক মহিলা পাচারকারী আটক বাগেরহাটে হত্যা মামলার আসামীর পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু বাঘাইছড়িতে প্রধানমন্ত্রীর ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপন কর্মসূচী” ঝিনাইদহে বিশ্ব নদী দিবস-২০২০ উপলক্ষে ভাসমান মঞ্চ ও শেখ হাসিনার ৭৪ তম জন্মদিন পালন যশোর-মাগুরা মহাসড়কে বাস উল্টে অর্ধশত যাত্রী আহত ইসলামপুরে নবাগত ইউএনও বরণ ও বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত রামগড়ে বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত রামগড়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার অবসরজনিত বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত
বিব্রত বিএনপি ,ঢাকা-১৫ আসন চায় জামায়াত

বিব্রত বিএনপি ,ঢাকা-১৫ আসন চায় জামায়াত

বিব্রত বিএনপি ,ঢাকা-১৫ আসন চায় জামায়াত
বিব্রত বিএনপি ,ঢাকা-১৫ আসন চায় জামায়াত

Print Friendly, PDF & Email

বিব্রত বিএনপি

ঢাকা-১৫ আসন চায় জামায়াত

বিবিসিনিউজ২৪ ডেস্ক ঃ কমপক্ষে ৩৫টি আসনে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের মনোনয়ন পেতে জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে জামায়াতে ইসলামী। অধিকাংশ আসনে সমঝোতা হলেও চারটি আসন নিয়ে বিএনপি-জামায়াতের বিরোধ চলছে। এর মধ্যে ঢাকা-১৫ (মিরপুর-কাফরুল) আসন পেতে নাছোড় অবস্থানে রয়েছে নিবন্ধন হারানো জামায়াত।

ওই আসনে জোটের প্রার্থী হতে চান জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান। জামায়াতকে ঢাকায় আসন ছাড়তে নারাজ  বিএনপি। কিন্তু দলটি ঢাকা-১৫ ছাড়তে রাজি হচ্ছে না। তাদের ক্রমাগত চাপে বিব্রত বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব। সেনানিবাস ও সামরিক গোয়েন্দা পরিদপ্তরের কার্যালয় লাগোয়া স্পর্শকাতর আসনটি দিতে রাজি নয় বিএনপি। দলের বিশেষ সম্পাদক ও সাবেক মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপনের মতো পরিচিত মুখ এ আসনে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী।

নিবন্ধন হারানো জামায়াত দলীয় প্রতীক ও পরিচয়ে নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না। দলটি প্রথমে সিদ্ধান্ত নিয়েছিল- স্বতন্ত্র নির্বাচন করবে। সিদ্ধান্ত বদল করে এখন ধানের শীষ প্রতীকে ভোট করার চিন্তা করছে জামায়াত। কিন্তু আসন বণ্টনের বিষয়টি দুই দলের মধ্যে আটকে আছে।

দলের নায়েবে আমির মুজিবুর রহমানের জন্য রাজশাহী-১, নির্বাহী পরিষদ সদস্য নুরুল ইসলাম বুলবুলের জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩, ইজ্জত উল্লাহর জন্য সাতক্ষীরা-১ আসন চায় জামায়াত। কেন্দ্রীয় নেতাদের এসব আসন পাওয়াকে মান-সম্মানের প্রশ্ন হিসেবে দেখছে দলটি।

জামায়াতের নায়েবে আমির মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, শফিকুর রহমানকে ঢাকা-১৫ আসনে প্রার্থী করতে হঠাৎ করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। দীর্ঘদিন ধরে এ আসনে কাজ করছে জামায়াত। গণসংযোগ ও কর্মী-সমর্থক সৃষ্টি করা হয়েছে। শফিকুর রহমানের দাবি, বড় দল হিসেবে রাজধানীতে জামায়াতের একটি আসন পাওয়া উচিত।

 
hostseba.com
 

বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতাদের ঢাকায় মনোনয়ন দিচ্ছে। ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব এবং কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকী ঢাকায় নির্বাচন করতে পারেন।

জামায়াতও দলের শীর্ষ নেতার জন্য ঢাকায় আসন চায়। ঐক্যফ্রন্টের নেতারা জাতীয়ভাবে পরিচিত হলেও শফিকুর রহমান তা নন। দলের শীর্ষস্থানীয় নেতারা মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে দণ্ডিত হলে তাদের শূন্যস্থানে জামায়াতের নেতৃত্বে আসেন তিনি।

অতীতের নির্বাচনগুলোয় রাজধানীর কোনো আসনেই জামানত বাঁচাতে পারেনি জামায়াত। ২০০১ সালের নির্বাচনে ৩০টি এবং ২০০৮ সালের নির্বাচনে ৩৩টি আসনে জামায়াত বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের মনোনয়ন পেলেও ঢাকায় কোনো আসন পায়নি। ২০০৮ সালে জামায়াত ঢাকা-৮ আসন পেতে চেষ্টা করে। তবে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জামায়াতকে সবসময় ঢাকা থেকে দূরে রাখেন।

ঢাকা-১৫ আসন দাবি করার পেছনে জামায়াতের যুক্তি, ঐক্যফ্রন্টের দলগুলোর চেয়ে ঢাকায় জামায়াতের ভোট অনেক বেশি। জামায়াতের নিজস্ব কর্মী-সমর্থক রয়েছে। নির্বাচন করার মতো জনবলও রয়েছে। ঐক্যফ্রন্টের দলগুলোর তাও নেই। তারা পেলে জামায়াত কেন ঢাকায় আসন পাবে না। তবে বিএনপি খালেদা জিয়ার নীতিতেই থাকতে চায়। জামায়াতকে ঢাকায় আসন দিলে জোটের ক্ষতি হবে বলে মনে করছে বিএনপি। কারণ ডা. শফিকুর নির্বাচন করলেও ঢাকায় জামায়াতের সব নেতাকর্মী তার জন্য কাজ করবেন। ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের পক্ষে কেউ নামবেন না।

বিএনপি জোটের সিদ্ধান্তে গত নির্বাচন বর্জন করে জামায়াত। ১৯৯১ ও ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে রাজধানীর সব আসনে প্রার্থী দিয়েছিল জামায়াত। জামানত রক্ষা হয়নি একটিতেও। বিএনপি জোটে যোগ দেওয়ার পর ঢাকায় জামায়াতের প্রার্থী ছিল না। শফিকুর রহমানকে যে আসনে প্রার্থী করতে চায় জামায়াত, ১৯৯১ সালে সেখানে আট হাজার ১৯১ ভোট পেয়েছিল জামায়াত; যা প্রদত্ত ভোটের ৭ শতাংশ। পরের নির্বাচনে জামায়াত ভোট পেয়েছিল আট হাজার ৯৪৬, যা প্রদত্ত ভোটের সোয়া তিন শতাংশ। ২০০১ সালে মৌলভীবাজার-২ আসনে জোটের প্রার্থী হয়ে জামানত হারান শফিকুর রহমান। পরের নির্বাচনে সেখানে তিনি মনোনয়ন পাননি। নিজের এলাকা সিলেট-১ আসনেও মনোনয়ন পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।

জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন না। তাই দলটির সাবেক ভারপ্রাপ্ত আমির মুজিবুর রহমানের জন্য রাজশাহী-১ আসন চায় জামায়াত। তিনি এ আসনের সাবেক এমপি। এ আসনে বিএনপির প্রার্থী আমিনুল হক তিনবারের এমপি। তারপরও দলের শীর্ষস্থানীয় নেতার জন্য আসনটি চাইছে জামায়াত। বিনিময়ে রাজশাহী-৩ আসন বিএনপিকে ছেড়ে দিতে রাজি হয়েছে দলটি।

২০০৮ সালের নির্বাচনে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে বিএনপি ও জামায়াত দুই দলেরই প্রার্থী ছিল। ৭৬ হাজার ভোট পেয়ে বিএনপি দ্বিতীয় হয়। ৭২ হাজার ভোট পাওয়া জামায়াত ছিল তৃতীয় স্থানে। ২০০১ সালে ৬৮ হাজার ভোট পেয়ে দ্বিতীয় স্থান পান স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়া জামায়াত নেতা লতিফুর রহমান। এ আসনকে নিজেদের দাবি করে জোটের মনোনয়ন চায় জামায়াত।

আপনার মতামত দিন

Tayyaba Rent Car BBC News Ads

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team