1. seopay01833@gmail.com : Reporter : Reporter
  2. fhbadshah95@gmail.com : MJHossain : M J Hossain
  3. g21@exnik.com : isaac10j54517 :
  4. Janet-Baader96@picklez.org : janetbaader69 :
  5. tristan@miki8.xyz : katherinflower :
  6. makaylafriday74@any.intained.com : makaylafriday8 :
  7. mdrakibhasan752@gmail.com : Rakib Hasan : Rakib Hasan
  8. g39@exnik.com : meredithbriley :
  9. muhibbbc1@gmail.com : Muhibullah Chy : Muhibullah Chy
  10. olamcevoy@baby.discopied.com : olamcevoy1234 :
  11. g2@exnik.com : roseannaoreily4 :
  12. b13@exnik.com : sebastianstanfor :
  13. g29@exnik.com : tangelamedina :
  14. g24@exnik.com : teenaligar6 :
  15. b15@exnik.com : xugmerri6352 :
  16. g16@exnik.com : yzvhildegarde :

শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন

সবার দৃষ্টি আকর্ষন:
বিবিসিনিউজ২৪ডটকমডটবিডি এর পেইজে লাইক করে মুহূর্তেই পেয়ে যান আমাদের সকল সংবাদ
ব্রেকিং নিউজ :
মোরেলগঞ্জে চা দোকানিকে কুপিয়ে হত্যা “আন্তর্জাতিক হোহিও চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান এখন রাংগামাটির দূর্গম বাঘাইছড়িতে” চট্টগ্রাম মেডিকেলে বেহাল দশা/চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরাই যেন সর্বেসর্বা বিবিসিনিউজ২৪ এর প্রতিনিধি নাহিদ কে বহিষ্কার যুবলীগ নেতার উপর হামলার প্রতিবাদ জানিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ খাগড়াছড়ি এক বাড়িতে ডাকাতি ও ধর্ষনের অভিযোগ দীঘিনালায় হত্যা মামলায় আনসার সদস্যের আদালতের রায় মৃত্যুদন্ড পঞ্চগড়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু আশুলিয়া যুবলীগের উদ্যেগে শেখ ফজলে শামস পরশের মামার জন্য দোয়া ও মিলাদ মাহফিল আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন প্রত‍্যাশী শামীম
সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির দণ্ড স্থগিত না হলে প্রার্থিতা বাতিল: ইসি

সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির দণ্ড স্থগিত না হলে প্রার্থিতা বাতিল: ইসি

bbcnews24
bbcnews24

Print Friendly, PDF & Email

সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির দণ্ড স্থগিত না

হলে প্রার্থী হওয়ার যাবে না

বিবিসিনিউজ২৪ ডেস্ক ঃএকাদশ সংসদ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে দেওয়া নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ব্রিফিংয়ে বলা হয়েছে, সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির দণ্ড স্থগিত না হলে তিনি প্রার্থী হওয়ার যোগ্য হবেন না।

সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তির আপিল শুনানি চলমান থাকলেও তা আমলে না নেওয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছে ইসি। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) স্বচ্ছ, অবাধ, গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন করে ইতিহাস গড়ার জন্য রির্টানিং কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন।

তবে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের বেশকিছু প্রশ্নের উত্তর মেলেনি। সেক্ষেত্রে ইসির পক্ষ থেকে আইন-কানুন খতিয়ে দেখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের।

রিটার্নিং কর্মকর্তারা জানতে চান, স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিরা পদে থেকে নির্বাচন করতে পারবে কী-না। মন্ত্রী-এমপিদের প্রটোকলের বিষয়টি কি হবে ইত্যাদি। এসব প্রশ্নে ইসি কিছু বিষয়ে দিক নির্দেশনা দিয়েছে। বাকি কয়েকটি বিষয়ে কমিশনের সিদ্ধান্ত পরে জানানোর কথা বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে ইসি আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে ইসি কার্যালয়ের সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদের সভাপতিত্বে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদাসহ অন্য কমিশনারবৃন্দ বক্তব্য দিলেও দ্বিতীয়ার্ধে রুদ্ধদার বৈঠকে রিটার্নি কর্মকর্তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন কমিশনার রফিকুল ইসলাম।

 
hostseba.com
 

ইসি সংশ্নিষ্টরা জানিয়েছেন, সরকার বিরোধী জোট ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দেওয়ার ফলে মনোনয়নপত্র জমা ও বাছাই প্রক্রিয়ার গুরুত্ব অনেক বেড়ে গেছে। কেননা এই প্রক্রিয়ায় স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা না গেলে দেশের রাজনৈতিক সংকট বাড়ার ইস্যু তৈরি হতে পারে। আচরণবিধি প্রতিপালনের বিষয়টিও এবারের নির্বাচনে অত্যন্ত গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। কেননা ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে ভোটের মাঠে সবার জন্য সমান সুযোগ বা ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ তৈরি নিয়েও নানা অভিযোগ তোলা হয়েছে। রিটার্নিং কর্মকর্তাদের সঙ্গে এরপর কমিশনের আরেকদফা বৈঠক হবে নির্বাচনের আইনশৃংখলা সংক্রান্ত বিষয়ে। এর আগে মনোনয়ন জমা-বাছাই ও আচরণবিধি লঙ্ঘন নিয়েই উত্তপ্ত হতে পারে রাজনীতির ময়দান। তাই এই বৈঠকে গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দেওয়ার কথা ছিল ইসির পক্ষ থেকে।

বৈঠকে অংশ নেওয়া রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ইসি সচিবালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দ্বিতীয়ার্ধে ইসির পক্ষ থেকে নির্বাচনের বিভিন্ন আইন-কানুন সম্বলিত পুস্তিকা রিটার্নিং কর্মকর্তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। হাতেগোনা কয়েকটি বিষয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে ইসির কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল।

আদালতে দণ্ডপ্রাপ্তদের বিষয়ে ইসির আইন শাখার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নিম্ন আদালতের সাজা উচ্চ আদালতে স্থগিত না হলে তার প্রার্থিতা বাতিল হয়ে যাবে। সেক্ষেত্রে আপিল চলমান থাকলেও তা আমলে নেওয়ার সুযোগ নেই।

এ বিষয়ে একজন রিটার্নিং কর্মকর্তার প্রশ্নের জবাবে কমিশনের একজন সদস্য বলেন, এ ধরনের বিষয় থাকলে রিটার্নিং কর্মকর্তারা পার্থিতা বাতিল করে দেবেন। পরে কমিশন বিষয়টি দেখবে।

ইসি সংশ্নিষ্টরা জানিয়েছেন, রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রার্থীর পক্ষ থেকে কমিশনে আপিলের সুযোগ রয়েছে। একইভাবে কমিশনের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রার্থীর উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হওয়ারও সুযোগ রয়েছে।

বৈঠক সূত্র জানায়, রিটার্নিং কর্মকর্তাদের পক্ষ থেকে জানতে চাওয়া হয়েছিল সরকারি সুবিধাভোগী হিসেবে মন্ত্রী-এমপিদের প্রটোকলের বিষয়ে তাদের করণীয় কি?

জবাবে ইসির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, প্রার্থী হওয়ার পরে সরকারি সুবিধাভোগী ব্যক্তিদের কেউই সরকারি প্রটোকল পাবেন না। সব ধরনের সরকারি সুবিধা ত্যাগ করতে হবে। তাদের গাড়িতে পাতকাও উড়বে না। তবে যথাযথভাবে তাদের নিরাপত্তা দেবে স্থানীয় প্রশাসন।

কোন মন্ত্রী যদি ওই এলাকার প্রার্থী না হন তিনি প্রটোকল পাবেন কী-না এমন প্রশ্নের জবাবে ইসির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, সরকারি কাজে তিনি প্রটোকল ব্যবহার করতে পারবেন কিন্তু নির্বাচনী প্রচারে নয়। সরকারি কাজে গিয়ে নির্বাচনী প্রচারে অংশ নিলেও তা আচরণবিধির লঙ্ঘন হবে। সেক্ষেত্রে এসব বিষয়ে দ্রুত কমিশনকে জানাতে হবে। কমিশন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

ইসি সূত্র জানায়, স্থানীয় সরকারের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে জেলা পরিষদ, পৌরসভা, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যরা পদে থেকে নির্বাচনের সুযোগ পাবেন কি-না রিটার্নিং কর্মকর্তাদের এমন প্রশ্নেরও সুনির্দিষ্ট জবাব দিতে পারেননি কমিশন। এ বিষয়ে কমিশন থেকে পরে পরিপত্র জারি করা হবে বলে বৈঠকে জানানো হয়েছে।

এদিকে বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের নির্দেশনা প্রদান কার্যক্রম। বুধবার ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ, কাল বৃস্পতিবার সিলেট, চট্টগ্রাম ও বরিশাল বিভাগ এবং পরদিন রাজশাহী, রংপুর ও খুলনা বিভাগের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তাদের দিক নির্দেশনা দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী বক্তব্যে সিইসি নূরুল হুদা বলেন, এবার নতুন প্রেক্ষাপটে ভোট হচ্ছে। নির্বাচনের পরিবেশ হবে ভিন্ন।

তিনি বলেন, এর আগে দেশে কখনো রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার, কখনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার, কখনো সেনাবাহিনীর অধীনে নির্বাচন হয়েছে। কিন্তু অন্যান্য নির্বাচন থেকে এবারের নির্বাচন সম্পূর্ণ ভিন্ন। কারণ সংসদ রেখে, সরকার রেখে এই নির্বাচন ২০১৪ সালে হলেও সেখানে সব দল অংশ নেয়নি।

সিইসি বলেন, এবারের নির্বাচনে সব দল অংশ নিতে যাচ্ছে। যে কারণে রিটার্নিং কর্মকর্তাদের দায়িত্বও অনেকগুণ বেড়ে গেছে। এখন থেকে ভোটের সব দায়িত্ব মূলত রিটার্নিং কর্মকর্তাদের। তাদের আন্তরিকতা থাকলে ইসির ভূমিকা নিয়ে জনগণের সন্দেহের কোন কারণ থাকবে না।

আপনার মতামত দিন

Tayyaba Rent Car BBC News Ads

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team