রবিবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২০, ০৬:৪১ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
আমাদের নিউজে আপনাকে স্বাগতম... আপনি ও চাইলে আমাদের পরিবারের একজন হতে পারেন । আজই যোগাযোগ করুন ।
ব্রেকিং নিউজ :
সরকার যতই নির্যাতন করুক, বিএনপিকে মানুষ কখনই ভুলে যাবে না, বাগেরহাট জেলা বিএনপি। রাঙ্গামাটিতে বরকল উপজেলার ভুয়া ঠিকানা দিয়ে সহঃ শিক্ষক পদে অবৈধভাবে চাকরি নেবার অভিযোগ ইয়েমেনে নামাজের সময় সেনা ক্যাম্পে হামলা, নিহত ৬০ মিরসরাই থানা পুলিশের অভিযানে হাদির ফকিরহাটে ৬০০ পিস ইয়াবা সহ ০৩ আসামি গ্রেফতার আগামী ২৪ জানুয়ারি দরগাহ পাড়া ঐতিহাসিক তাফসীরুল কোরআন মাহফিল ট্যুরিস্ট অফ চিটাগং এর রাঙ্গামাটি ভ্রমণ সম্পন্ন চট্টগ্রামে বিমান বন্দরে যাত্রীর পেট থেকে ৮ টি স্বর্ণের বার উদ্ধার যাদের মধ্যে মানবিক মূল্যবোধ কাজ করে তারাই প্রকৃত মানুষ-চসিক মেয়র নাগরপুরে সজল সিকদার এর প্রতারনা ও ধর্ষনের প্রতিবাদে মানববন্ধন ঝালকাঠি রিপোর্টার্স ইউনিটির কমিটি গঠন সভাপতি আল আমিন সম্পাদক মান্নান
শিক্ষক তিন দিন ধরে বিয়ের প্রলোভনে ছাত্রীকে ধর্ষণ

শিক্ষক তিন দিন ধরে বিয়ের প্রলোভনে ছাত্রীকে ধর্ষণ

শিক্ষক তিন দিন ধরে বিয়ের প্রলোভনে ছাত্রীকে ধর্ষণ
শিক্ষক তিন দিন ধরে বিয়ের প্রলোভনে ছাত্রীকে ধর্ষণ
Advertisements

শিক্ষক তিন দিন ধরে বিয়ের প্রলোভনে ছাত্রীকে ধর্ষণ

বিবিসিনিউজ২৪ ডেস্ক ঃমাদারীপুর শহরের কলেজ রোড এলাকায় কোচিং সেন্টারে আটকে রেখে এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে রফিকুল ইসলাম নামে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাতে ওই ছাত্রীকে কোচিং সেন্টার থেকে উদ্ধার করেছে মাদারীপুর সদর থানা পুলিশ।স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুরের শহরের কলেজ রোড এলাকার মজিবুর খানের বাড়ি ভাড়া নিয়ে বিভিন্ন শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের কোচিং করাতেন রফিকুল ইসলাম নামের এক শিক্ষক। সরকারি নাজিম উদ্দিন কলেজের একাদশ শ্রেণির এক ছাত্রী ওই শিক্ষকের কাছে কোচিং করতেন। দীর্ঘদিন পড়ানোর সুবাদে ওই ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষক রফিকের ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায়ে সম্পর্ক প্রেমে গড়ায়। রবিবার ওই ছাত্রীকে কোচিং শিক্ষক বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার কোচিং সেন্টারে ডেকে আনে। পরে সেখানে আটকে রেখে তিন দিন তাকে ধর্ষণ করে। এ সময় বিভিন্নভাবে পালানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় ভুক্তভোগী ছাত্রী। মঙ্গলবার রাতে নির্যাতিত ওই ছাত্রীর চিৎকার-চেচামেচি শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। এসময় পালিয়ে যান কোচিং শিক্ষক রফিকুল ইসলাম। শিক্ষক রফিকুল মাদারীপুর সদর উপজেলার খোয়াজপুর এলাকার মজিবর বেপারীর ছেলে।

নির্যাতিত ছাত্রী বলেন, রফিক স্যারের কাছে পড়তে আসার পর থেকেই তিনি আমাকে বিভিন্ন সময় প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। একসময় তিনি আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। গত রোববার তিনি আমাকে বিয়ের কথা বলে ডেকে এনে তিন দিন ধরে আমার সাথে খারাপ কাজ করেছে। তিনি কোচিংয়ের সময় আমাকে রুমের মধ্যে আটকে রাখতেন। কারো সাথে কথাও বলতে দিতেন না। আমার মোবাইল ফোনও উনার কাছে।

মাদারীপুর সদর থানার ওসি (তদন্ত) সিরাজুল ইসলাম বলেন, নির্যাতিত ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে। কোচিং শিক্ষক পলাতক রয়েছে। তবে ওই শিক্ষকের কোচিং সেন্টার থেকে কনডম উদ্ধার করা হয়েছে। মেয়েটির মেডিকেল পরীক্ষার পরে বিস্তারিত জানা যাবে। মামলা প্রক্রিয়াধীন

আপনার মতামত দিন

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..

Advertisements

Comments are closed.

Advertisements

অনলাইন ভোটে অংশগ্রহন করুন




Advertisements

Our English Site

© All rights reserved © 2017-27 Bbcnews24.com.bd
Theme Developed BY ANI TV Team