মাথা গরম যুবক, মাথা ফাটিয়ে দিল পাহাড়তলী থানার এসআই কামরুজ্জামানের!

0
176
মাথা গরম যুবক, মাথা ফাটিয়ে দিল পাহাড়তলী থানার এসআই কামরুজ্জামানের!
মাথা গরম যুবক, মাথা ফাটিয়ে দিল পাহাড়তলী থানার এসআই কামরুজ্জামানের!

মাথা গরম যুবক, মাথা ফাটিয়ে দিল পাহাড়তলী

থানার এসআই কামরুজ্জামানের!

বিবিসিনিউজ২৪ ডেস্কঃ সাবধানে রাস্তা পার হওয়ার অনুরোধ করায় এক পুলিশ কর্মকর্তাকে মেরে গুরুতর আহত করেছে এক পথচারী। আহত পুলিশ কর্মকর্তা হচ্ছেন নগরীর পাহাড়তলী থানার এসআই কামরুজ্জামান। পথচারী হচ্ছেন রুমেল চন্দ্র মনি। গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে কোতোয়ালী থানার কাজীর দেউড়ি মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ রুমেলকে আটক করেছে। আহত কামরুজ্জামানকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ক্যাজুয়ালিটি ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীর সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, সন্ধ্যায় যানজটের কারণে কাজীর দেউড়ি মোড়ে যানবাহন চলছিল ধীরগতিতে। ওইসময় রুমেল ও তার এক বান্ধবী রাস্তা পার হচ্ছিলেন। একইসময়ে মোটরসাইকেলে করে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন এসআই কামরুজ্জামান। তখন রুমেল ও তার বান্ধবী অল্পের জন্য কামরুজ্জামানের মোটরসাইকেলের ধাক্কা থেকে রক্ষা পায়। এসময় কামরুজ্জামান দেখেশুনে রাস্তা পার হওয়ার অনুরোধ করেন মেয়েটিকে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কামরুজ্জামানের উপর হামলা করে রুমেল। এসময় রুমেল তার হাতে থাকা স্টিলের ছাতা দিয়ে কামরুজ্জামানের মাথায় আঘাত করে। খবর পেয়ে কোতোয়ালী থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে রুমেলকে আটক করে। আটককৃত রুমেল দাবি করেছে, কামরুজ্জামানের মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দিয়েছে। ঘটনাস্থলে থাকা কয়েকজনের অভিমত এটা মাথা গরম যুবকের মাথা ফাটানোর ঘটনা। এতটা উত্তেজিত না হলেও চলতো।

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ও পুলিশ পরিদর্শক জহিরুল ইসলাম বলেন, মোটরসাইকেলে করে এসআই কামরুজ্জামান সন্ধ্যায় তার কর্মস্থল পাহাড়তলী থানায় যাচ্ছিল। ওই সময় কাজী দেউড়ি মোড়ে মনি ও তার বান্ধবী রাস্তা পার হচ্ছিলেন। তখন এসআই কামরুজ্জামান তাদেরকে দেখেশুনে রাস্তা পার হওয়ার কথা বলে। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মনি আকস্মিক আক্রমণ করে কামরুজ্জামানের উপর। তার হাতে থাকা ছাতা দিয়ে কামরুজ্জামানের মাথায় এলোপাতাড়ি আঘাত করে। এতে তার মাথা ফেটে যায়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাহাড়তলী থানার ওসি রফিকুল ইসলাম বলেন, যানজটের কারণে যান চলাচল স্লো  ছিল। এক ছেলে ও এক মেয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলেন।

তখন কামরুজ্জামানের মোটরসাইকেলের সঙ্গে প্রায় ধাক্কা লাগার উপক্রম হয়। তখন কামরুজ্জামান দেখেশুনে রাস্তা পার হওয়ার অনুরোধ করেন। তখন ছেলেটি মেয়েটির সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেছে দাবি করে তার হাতে থাকা স্টিলের ছাতা দিয়ে কামরুজ্জামানকে আঘাত করে। মাথা ফেটে যায়। অবশ্য আমার অফিসার ছেলেটিকে আটক করে। বর্তমানে ছেলেটি কোতোয়ালী থানায় আছে। এ প্রসঙ্গে কোতোয়ালী থানার ওসি জসীম উদ্দীন বলেন, ছেলেটিকে আটক করা হয়েছে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। লালদীঘির পাড় সোনালী ব্যাংকের পেছনে নবগ্রহ বাড়ির গৌরাঙ্গ চন্দ্রের ছেলে মনি। প্রথমে মনি নিজেকে একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরিচয় দিলেও পরে দেখা যায় তা মিথ্যে। সে একজন বখাটে।

MAXZIONIT