মানিকছড়িতে বাপেক্স কর্মকর্তারা সীমানা ডিঙ্গীয়ে জমি দখলরে অভিযোগ!

0
80
মানিকছড়িতে বাপেক্স কর্মকর্তারা সীমানা ডিঙ্গীয়ে জমি দখলরে অভিযোগ
মানিকছড়িতে বাপেক্স কর্মকর্তারা সীমানা ডিঙ্গীয়ে জমি দখলরে অভিযোগ

মানিকছড়িতে বাপেক্স কর্মকর্তারা

সীমানা ডিঙ্গীয়ে জমি দখলরে অভিযোগ

আলমগীর হোসেন,খাগড়াছড়িঃ মানিকছড়ি উপজেলার যোগ্যাছোলা ইউনিয়নে অবস্থিত সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) এক অসাধু কর্মর্কতা ক্ষমতার অপব্যবহার করে সাধারন মানুষকে হুমকি দুমকি দিয়ে সীমানা প্রাচীর ডিঙ্গীয়ে জমি দখল ও গাছ কাটার অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগে বলা হয়। হিসাব ভিবাগ সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) কর্মকর্তা মো: ইদ্রিসুর রহমান বলেন সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) একোয়ার করা জায়গা ছাড়িয়া দিতে হবে বলে বাড়ীতে পুরুষ না থাকায় মহিলাদেরকে বাসায় গিয়ে হুমকিদেন এবং অকথ্য ভাষায় গালমন্থ করেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা আ: করিম বলেন এই দেশে স্বাধনতার পর পর আমরা সহপরিবারে বসবাস করিতেছি। সরকার দেশ ও জনগনের সার্থে কাজ করে মর্মে আমরা যোগ্যাছোলা ইউনিয়ন বাসী ২৩১ নং কালাপানি মৌজায় নিজের দখলকৃত জমি এলাকা উন্নয়নের লক্ষে ১৯৯৭ সালে এলাকার সবাই সেচ্ছায় সরকারকে ছেড়ে দেই।

সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র (বাপেক্স) ১২একর ৭০ শতক জায়গা সীমানা প্রচীর নির্মাণ করে দখলে নেন। আমাদের কোন আপত্তি ও নাই। কিন্তু সীমানা প্রচীরের বাহিরে সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র (বাপেক্স)এর অসাধু হিসাব রক্ষক নিজে জমি দখল করার অপচেষ্টা করেন। সামশুল হক পাটোয়ারীর ছেরে লিখিব অভিযোগে বলেন ঐ অসাধু কর্মকর্তা আমাদের র্দীঘ দিনের ভোগ দখলিয় জায়গা দখল করার চেষ্টা করেন। এবং আমাদের সৃজনকৃত জায়গা হইতে সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) এর অনুমতি বিহীন নিজ ক্ষমতার বলে গাছ কর্তন করেন। এবং নিজের জন্য আসবাব পত্র র্পানিচার তৈয়ারী করে বাড়ীতে নিয়ে যান।

আমরা বাধা দিলে আমাদেরকে গার্ড ও সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) রক্ষাকারী পুলিশ দিয়ে হয়রানী করে। আমাদের লাগানো গাছ কেটে বিক্রয় করেদেন সেই হিসাব রক্ষক ইদ্রিসুর রহমান। মাষ্টার আবদুল মন্নান জানান আমার রেজিষ্টারী কৃত জমিতে দখলের চেষ্টাকরেন সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) অসাধু হিসাব রক্ষক ইদ্রিসুর রহমান, আরো বলেন সেই প্রায় সময় পাহারাদার পুলিশ নিয়ে আমাদের কে হুমকি ধুমকিদেন প্রকাশ্য বলেন জেলা প্রসাশক অফিসে তাহার নিকটতম ভাই চাকুরী করেন। এইসব বিষয় নিয়ে ১০ জন ব্যক্তি বাদী হয়ে তাহার বিরুদ্ধে অভিযোগ করলে।

গত ৭ মার্চ বিকাল ৪টায় মানিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান ম্রাগ্য মারমা, মানিকছড়ি উপজেলার অতিরিক্ত দায়িত্ব উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভূসি কমিশনার রুবাইয়া আফরুজ, যোগ্যাছোলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মো: জয়নাল আবেদীন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার শফিউল আলম চৌধুরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাহেলা আক্তার, স্থানীয় মেম্বার মো: সুরুজ মিয়া, মহিলা মেম্বার শাহিনা আক্তার, সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) এর মানিকছড়ির উর্ধতন কর্মর্কতারা উপস্থিত ছিলেছেন।সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) এর মানিকছড়ির উর্ধতন কর্মর্কতারা বলেন এই প্রথম আমি শুনেছি অভিযোক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্থানীয় চেয়াম্যান জয়নাল আবেদীন বলেন জমির হিসাব সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) উর্ধতন কর্মর্কতারা আর আমাদের জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা সিদান্ত মোতাবেক সুষ্ট সমাদান হবে।
তবে হিসাব রক্ষক ইদ্রিসুর রহমান গাছ কাটার অনুমতি কোথায় পেল। একং নিজস্ব আসবাব পত্র র্পানিচার তৈয়ারী করার অনুমতি কে দিল। আপনাদের মাধ্যমে জানতে চাই। ইদ্রিসুর রহমানের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

উপজেলা চেয়ারম্যান ম্রাগ্য মারমা প্রতিনিধিকে বলেন এলাকার পরিস্থিতি শান্ত রাখার জন্য ঘটনাস্থলে আমি গিয়েছি এবং গাছকাটার প্রমান পেয়েছি।যদি সীমানার বাহিরে গ্যাসফিল্ড কোম্পানীর জমি থাকে তা কাগজ পত্র দেখে আমাদের মানিকছড়ি ভুমি কমিশনার সিদান্ত ও জেলা প্রশাসক বরাবরে প্রতিবেদন দাখিল করিবেন কিন্তু গাছ কাটা নেহাত অন্যায়। মানিকছড়ি ভুমি কমিশনার রুবাইয়া আফরোজ বলেন সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) এর মানিকছড়ির ২৩১নং কালাপানি মৌজায় ১৯৭০ সালে ১২ একর ৭০ শকত জায়গা লিজ নেন ২০১৯ সাল পর্যন্ত। কিন্তু বর্তমানে উক্ত জায়গায় কি অবস্থা ও উচ্ছেদ করাক একটি পত্র আসে জেলা প্রশাসক মহোদয় থেকে কিন্তু সীমানার বাহিরে দখল বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

সেমুতাং গ্যাস ক্ষেত্র(বাপেক্স) এর মানিকছড়ির উর্ধতন কর্মর্কতারা বলেন আমরা জমি দখল নিতে আসি নাই। তবে আমাদের সীমানার মধ্য যা আছে। বিষয়টি নিয়ে আমাদের কোম্পানি ও জেলা প্রশাসক মহোদয় সুষ্ট সমাধান দিবেন। কিন্তু গাছকাটা, হুমকি দেওয়া, সীমানার বাহিরে দখর করা এইসব বিষয় নিয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

MAXZIONIT