দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর,ফরাত আলী ও রফিককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা!

0
29
দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর,ফরাত আলী ও রফিককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা
দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর,ফরাত আলী ও রফিককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

দৌলতপুরে বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর

ফরাত আলী ও রফিককে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

দৌলতপুর প্রতিনিধিঃ বৃহস্পতিবার সকাল ১১ ঘটিকার সময় দৌলতপুর থানার সামনে দৌলতপুর উপজেলার সচেতন নাগরিক বৃন্দ এর ব্যানারে শত শত লোক ব্যানার হাতে বিক্ষোভ করতে থাকে। তাদের দাবি দৌলতপুর পাইলট মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধানশিক্ষক ও উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মোঃ ফরাত আলী ২০০১ সালের ১০ অক্টোবর বঙ্গবন্ধুর ছবি ভাংচুর করেন।

তিনি তার আপন ভাইরা ও সহকারী শিক্ষক রফিকুল ইসলামকে সাথে নিয়ে অবৈধ ভাবে শিক্ষক কর্মচারী নিয়োগ দেন। এসময় ৭৫, কুষ্টিয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ রেজাউল হক চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌফিকুর রহমান উপস্থিত হলে বিক্ষোভ কারিরা তাদের দাবি তুলে ধরেন। তারা ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস দিলে বিক্ষোভ কারিরা শান্ত হন। পরে বিক্ষোভ কারিরা সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে ফরাত আলী ও তার ভাইরা রফিককে অবাঞ্ছিত ঘোষনা করেন।

বিক্ষোভ এর সমন্বয়ক ও উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক আব্দুল্লাহ বিন জোহানী (তুহিন) বলেন ফরাত আলী একজন দুর্নীতি গ্রস্থ লোক। তার যোগ্যতা না থাকা সত্তেও দলিয় ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে বিএনপি জোটের সময় নিয়োগ নেন। এখন তিনি শিক্ষক নামধারী ক্যাডার রফিকের সহায়তাতে প্রধানশিক্ষকের ছেলে ফয়সাল মাহমুদ প্রিন্স ও রফিকের ভাতিজা আসিফ সওগাত শাওনকে অফিস সহকারী পদে নিয়োগ দেন। তিনি আরো বলেন এই সব অবৈধ নিয়োগের ব্যাপারে নিজে বাদি হয়ে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ প্রদান করেছেন। অল্প দিনের মধ্যেই তদন্ত শুর হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

MAXZIONIT