দৌলতপুরে কয়ামিকেল টমেটো পাকাঁনোর ধুম

0
69
দৌলতপুরে কয়ামিকেল টমেটো পাকাঁনোর ধুম BBCNEWS24
দৌলতপুরে কয়ামিকেল টমেটো পাকাঁনোর ধুম BBCNEWS24

দৌলতপুরে কয়ামিকেল টমেটো

পাকাঁনোর ধুম

আছানুল হক: কুষ্টিয়া দৌলতপুর উপজেলার আদাবাড়ীয়া ইউনিয়নের প্রায় ৭০০ বিঘা ও বোয়ালীয়া ইউনিয়নের মদুগাড়ীয়া গ্রামে প্রায় ৬০০ বিঘা জমির টমেটো বিষ দিয়ে পাকাঁনো হচ্ছে বলে জানা গেছে।  এ বিষয়ে সাংবাদিকরা সরোজমিনে দেখতে গেলে দেখা যাই ভিন্ন চিত্র, প্রায় ৯০ থেকে ৯৫ টি খোলাতে টমেটো পাকাঁনোর কাজ চলছে।

সেখানে হাজার হাজার মন টমেটো পড়ে আছে এবং কর্মরত দিনমজুর সাংবাদিক দেখে দৌড়ে পালিয়ে যায় শত চেষ্টা করেও তাদের সাথে কথা বলা যায়নি।  কিন্তু যখন সাংবাদিক হিসেবে গেলে সবাই দৌড়ে পালাইছে তখন সাধারন কৃষকের বেশ ধরে মাঠে গেলে সাংবাদিক।  তখন সাধারন কৃষকরা না পালালেও পাওয়া যায় বেশ কিছু কৃষক, তারা স্বীকার করেন ইডেন ও গার্ডেন বিষ দিয়ে টমেটো পাকাঁচ্ছে তখনও সাংবাদিকরা কৃষক বেশে, কারন আরও কঠিন প্রমান চাই ।

আর তার কারন  গত সপ্তাহের নিউজে উপজেলা কৃষি অফিসার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন গত বারের মতই এবারের বক্তব্য, আমি জানি এটা বিষ দিয়ে পাকাঁচ্ছেনা হরমন জাতীয় ঔষধ দিয়ে পাকাঁচ্ছে যা মানব দেহের জন্য  ক্ষতিকর না। তার জন্য সাংবাদিকদের প্রয়োজন আর কিছু প্রমান  চালাতে থাকল অনুসন্ধান তাতেও মিললো বিষ স্প্রে করার দৃশ্য, গার্ডেন বতোলের লেভেল মানা আছে স্প্রে করে ফল পাকানো যাবেনা।  কৃষক বুঝে উঠার আগেই ততক্ষনে ক্যমেরা বন্দি হল বিষ স্প্রে করার দৃশ্য।  যিনি বিষ স্প্রে করছেন সাংবাদিকদের দেখে হাত পা ধরতে ব্যস্ত, কারন ম্যনেজ না হলেতো সমস্যা, পরে টাকার অফার করে বসলেন কৃষক।

সাধারন মানুষ অবাক এবং তাদের প্রশ্ন যাদের এই বিষয়টা দেখার কথা তারা কোথায়,  সাধারন মানুষ বুঝতে পারছেনা যে,  নিজের টাকা দিয়ে বিষ কিনে খাচ্ছে । এ বিষয়ে দৌলতপুর হাসপাতালের টি.এইচ. ও জানান, যে কোন ধরনের ফল যদি অপরিপক্ব হয়, তা যে কোন  ধরনের মেডিসিন দিয়ে পাকাঁলে তা অবশ্যই মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। দৌলতপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আর. এম. ও  মেডিকেল অফিসার সাজ্জাদ হোসেন জানান, যে কোন ফল প্রেশার দিয়ে পাকাঁলে তা মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। এ বিষয়ে কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন এর স্টাফ জানান, যে কোন হরমোন দ্বারা পাকাঁনো ফল মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর।

বিষ কোম্পানির সেলস্ ইউনিট ম্যানেজার জানান, গার্ডেন ও ইডেন মূলত ফল পাকাঁনোর কাজে ব্যবহারযোগ্য বিষ তবে সেটা স্প্রে করতে হবে ফল গাছে থাকতে, যাতে নেচারাল ভাবে পাকঁতে পারে। তবে যদি ফল অপরিপক্ব হয় এবং তা ছিড়ে উক্ত বিষ স্প্রে করা হয়, তাহলে সেটা মানবদেহের  জন্য মারাত্বক  ক্ষতিকর। উক্ত বিষয়ে কুষ্টিয়া খাদ্য অধিদপ্তর থেকে সাহ নেওয়াজ সাহেব জানান, যে  কোন ধরনের স্প্রে করে কোন অপরিপক্ক ফল পাকালে তা মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর । উক্ত বিষয়ে দৌলতপুর কৃষি অফিসারের কাছে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে মুঠোফোনে তিনি বিভিন্ন সময় দেখা করার কথা বললে ও দেখা করেনা।

পরে আবার দেখা করলে তিনি সাংবাদিককে প্রশ্ন করেন হরমন স্প্রে করলে মানবদেহের জন্য  ক্ষতিকর  কোথায় পেলেন? সাংবাদিকরা বলেন সিভিল সার্জন ও উপজেলা টি এইচ ও সাহেবের কাছ থেকে যেনেছি, তখন দৌলতপুর উপজেলা কৃষি অফিসার মোশাররফ হোসেন বলেন, সিভিল সার্জন কি জানে? ওকি পড়া শোনা করেছে? ওনি কোথায় থেকে পেয়েছে? কি জানে তারা?  “হট ইজ দিস” কি  জানে তারা বললেই হবে? মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর? এটা হরমোন কোন ক্ষতি হবে না।