চন্দনাইশ হিজরি নববর্ষ উদ্যাপন পরিষদের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

0
396
চন্দনাইশ হিজরি নববর্ষ উদ্যাপন পরিষদের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত
চন্দনাইশ হিজরি নববর্ষ উদ্যাপন পরিষদের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

চন্দনাইশ হিজরি নববর্ষ উদযাপন পরিষদের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

১৪৩৯ হিজরি নতুন বছরকে স্বাগত চন্দনাইশ মৌলভী বাজারে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান ২৯ সেপ্টেম্বর

মুহাম্মদ আবু নাছের, চট্টগ্রাম: হিজরি নববর্ষ উদ্যাপন পরিষদ বরকল-বরমার উদ্যোগে হিজরি নতুন বছর ১৪৩৯ কে স্বাগত জানিয়ে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর দুপুর ৩ টা থেকে চন্দনাইশ মৌলভী বাজার মোস্তফা কনভেনশন হলে  অনুষ্ঠিত হবে। ইসলামী সঙ্গীত, মরমী, কাউয়ালি, উজ্জীবনধর্মী ও দেশাত্মবোধক গান ও সঙ্গীত পরিবেশনের মাধ্যমে বিভিন্ন ইসলামী সাংস্কৃতিক সংগঠনের শায়ের ও শিল্পীবৃন্দ ৩য় বারের মতো হিজরি নববর্ষকে বরণ করে নেবেন। হিজরি নববর্ষ বরণে হিজরি নববর্ষ উদ্যাপন পরিষদ বরকল-বরমার উদ্যোগে এক প্রস্তুতি সভা গত ১৮ সেপ্টেম্বর চন্দনাইশ মৌলভী বাজার ইত্তেহাদে সিরাজুল মোমিনীন কার্যালয়ে আহ্বায়ক মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন কাদেরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় অতিথি ছিলেন, শেবন্দি-চরবরমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম।

মুহাম্মদ আব্দুল মুবিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, হাজী মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম, মাওলানা মুহাম্মদ মামুন উদ্দিন ছিদ্দিকী, মাওলানা মুহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান আলকাদেরী, মুহাম্মদ শরফুদ্দীন নিজামী, মুহাম্মদ জালাল উদ্দিন, মুহাম্মদ আবদুল মালেক, মুহাম্মদ মোর্শেদুল আলম টিপু, মাওলানা মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম, মুহাম্মদ ওসমান শাহাদাত, মুহাম্মদ হাসনান রেজা হাসিব, হাফেজ মুহাম্মদ সেকান্দর ইসলাম, মুহাম্মদ তৌহিদুল আলম, মুহাম্মদ খোরশেদুল আলম চৌধুরী, মুহাম্মদ আবু জাফর, মুহাম্মদ শাহাদাত হোসেন মানিক, মুহাম্মদ সাদ্দাম হোসেন, মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, মুহাম্মদ হায়দারুল আলম, মুহাম্মদ আসিফুল হাসান, মুহাম্মদ কুতুব উদ্দিন, মুহাম্মদ বেলাল উদ্দিন হাসান, মুহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন সাগর, মুহাম্মদ রাফি, মুহাম্মদ জাহেদুল হাসান বাপ্পি, মুহাম্মদ মহিউদ্দিন প্রমুখ।

চট্টগ্রামের সর্বশেষ সংবাদ পড়ুন

অনুষ্ঠানে বক্তারা সাংস্কৃতিক আগ্রাসন, মাদকের ভয়াবহ বিস্তার, তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির অপব্যবহারের কারণে যুব সমাজের নৈতিক অবক্ষয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, বিকৃত আবেদনময়ী অপসংস্কৃতি ঠেকাতে মননশীল সুস্থধর্মী ইসলামী সংস্কৃতির প্রসার ঘটাতে হবে। এ লক্ষ্যে হিজরি নববর্ষ উদ্যাপনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। বক্তারা হিজরি নববর্ষবরণ অনুষ্ঠানে সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণ কামনা করেন।