কে এই জান্নাতুল নাঈম ‘মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ ?

0
791
কে এই জান্নাতুল নাঈম ‘মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ - BBCNEWS24
কে এই জান্নাতুল নাঈম ‘মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ - BBCNEWS24

কে এই  জান্নাতুল নাঈম ‘মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’?

বিনোদন ডেস্কঃ জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল। চট্টগ্রামের একটি সাধারণ কৃষক পরিবারে জন্মগ্রহণকারী এভ্রিল ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি উচ্চতার অধিকারী। মোটরসাইকেল নিয়ে নানা কসরত দেখাতে পারদর্শী তিনি। আর সে জন্যই তিনি বন্ধদুের কাছে বাংলাদেশের হাইস্পিড লেডি বাইকার হিসেবেও পরিচিতি পেয়েছেন।

এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে এভ্রিলের নৈপুণ্য প্রদর্শনী, বাইক চালানোর ছবি ও ভিডিও। ফেসবুকে তার অনুসারীর সংখ্যা প্রায় ৯০ হাজার ছাড়িয়েছে। চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলার ৫নং বরমা ইউনিয়ন পরিষদের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কৃষক তাহের মিয়র মেয়ে জান্নাতুল নাঈম সর্বশেষ নাম লিখিয়েছেন ‘লাভেলো মিসওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতায়।

তবে এরই মধ্যে জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল’কে নিয়ে চলছে নানা গুঞ্জন। নিজের পরিচয়- বৈবাহিক অবস্থা গোপন করে মিডিয়াতে এসেছেন বলে অভিযোগ করেছেন তার বেশ কয়েকজন নিকটাত্মীয়। আর এভাবেই পরিচয় গোপন করে পৌঁছে গেছেন সুন্দরী প্রতিযোগীতায়। ঢাকায় নিজেদের বাড়ি-গাড়ি, বাবা থাকেন সিঙ্গাপুরে, বড় ভাইকে অনেক বড় ব্যবসায়ী বলে পরিচয় দিলেও অনুসন্ধানে দেখা গেছে তার জন্ম একটি সাধারণ কৃষক পরিবারে। এখনও খুব অভাব-অনাটেন দিন কাটছে তাদের।

বিয়ের আগেই এভ্রিলের চলাফেরা স্বাভাবিক ছিল না। বিভিন্ন ছেলেবন্ধুর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন তিনি। বিয়ের পর বেশিদিন স্বামীর সংসার করেন নি। কিছুদিন পরই সংসারের বন্ধন ছিন্ন করে চলে আসেন ঢাকায়। মিডিয়ায় প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য গড়ে তোলেন নিজের নেটওয়ার্ক। এরই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশের একটি প্রতিষ্ঠিত কোম্পানির প্রোমোটর হিসেবে নিয়োগ পান।

এদিকে, জান্নাতুল নাঈম এভ্রিল’কে তার এলাকার অনেকেই প্রতারক হিসেবে অভিহিত করেছেন। শুধু এলাকারই নয়, স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও তার বাবা নিজই এই অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ৫নং বরমা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম জানান, তার নাম জান্নাতুল নাঈম। এলকায় তার বিয়ে হয়েছিল। তবে সে সংসার বেশিদিন টেকেনি। তবে ডিভোর্সের পর তার আর কোনো খোঁজ আমরা পাইনি। শুনেছিলাম একবার চট্টগ্রামের একটি হোটেল রেড করার পর তাকে আটক করা হয়েছিলো। এর পর থেকে তার সম্পর্কে আর তেমন কিছু জানি না।

জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের বাবা তাহের মিয়া জানিয়েছেন, আমি সিঙ্গাপুরও থাকি না, বড় ব্যবসায়ীও না। এমন কি আমার ছেলেও কোনো ব্যবসার সঙ্গে জড়িত নয়। আমরা সাধারণ মানুষ। আর তাকে আমি মেয়ে বলে এখন স্বীকারও করি না। তার এমন কর্মকাণ্ডের জন্য অনেদিন আগেই তাকে আমার পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। সেই থেকে তার ভাল বা মন্দ কোনো কাজের দায়ভার আমি কোনোদিনই নেই নি এবং আগামীতেও নেব না।