কলারোয়ায় হিজলদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত! আনোয়ার হোসেন প্যানেল বিপুল ভোটে বিজয়ী!

0
61
কলারোয়ায় হিজলদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত!
কলারোয়ায় হিজলদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত!

কলারোয়ায় হিজলদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত!

আনোয়ার হোসেন প্যানেল বিপুল ভোটে বিজয়ী!

ফিরোজ জোয়ার্দ্দার,সাতক্ষীরা ব্যুরো চিপ:সাতক্ষীরার কলারোয়ায় সীমান্তবর্তী হিজলদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন টান টান উত্তেজনার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।সোমবার বিদ্যালয় কক্ষে সকাল ৯ টায় শুরু হয়ে চলা বিকাল ৪ টা পর্যন্ত বিরতীহীন ভাবে ভোট গ্রহণ শেষে উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি আনোয়ার হোসেনের প্যানেল বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়ে অধ্যাপক নূরুল ইসলাম প্যানেলকে পরাজিত করেন।

উক্ত নির্বাচনে আনোয়ার হোসেন প্যানেলে কামরুল ইসলাম ২২৩ ভোট, মোখলেছুর রহমান ২১৪ ভোট, আলহাজ¦ মনিরুল ইসলাম ২৩০ ভোট, আবু সিদ্দিক ২০৯ ভোট পেয়ে পুর্নাঙ্গ প্যানেল বিজয়ী হয়। নির্বাচনে ৪৩০ ভোটের মধ্যে ভোটাররা ৩৩৬ ভোট প্রদান করেন।নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল হামিদ, সহকারী দায়িত্ব পালন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমিরুল ইসলাম।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম, মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা মহর আলী, প্রভাষক সোহরাব, সমাজ সেবক মিজানুর রহমান, গ্রাম পুলিশ সদস্য ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা।এ দিকে বিজয়ী প্যানেল প্রধান দীর্ঘ ৩৫ বছর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সফল সভাপতি বর্তমান উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আনোয়ার হোসেন নির্বাচন শেষে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়াই সাংবাদিকদের জানান, বিজয়ী হয়ে যত খুশী তার চেয়ে বেশি দুঃখ পেয়েছি সরকারী দলীয় কিছু কুচক্র নেতাদের কর্মকান্ডে।

প্রবীন আওয়ামীলীগ নেতা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ভোট শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম লাল্টু ও বহিস্কৃত যুবলীগ সভাপতি মামলার আসামী কাজী শাহাজাদার নেতৃত্বে ৩০/৪০ টি মটর বাইক নিয়ে ভোট কেন্দ্র এলাকা মহড়া দিতে থাকেন এবং সাধারণ ভোটারদের ভয়ভীতি দেখিয়ৈ অধ্যাপক নূরুল ইসলাম প্যানেলকে বিজয়ী করার চেষ্টা করেন।
কিন্তু থানা প্রশাসনের কড়া অবস্থানের কারণে সাধারণ ভোটাররা সন্ত্রাস বাহীনীর অশুভ কর্মকান্ড প্রতিহত করে নির্বিঘেœ ভোট দিয়ে তাদেরকে বিজয়ী করেন।

এজন্য সাধারণ ভোটার সহ প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই সাথে সাথে সন্ত্রাস সৃষ্টিকারীদের কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ করি।এ দিকে বিজয়ী আরেক প্রাথী আলহাজ¦ মনিরুল ইসলাম জানান, ঐ সমস্থ সন্ত্রাসীদের দোসররা রোববার রাত ১০ টার দিকে হিজলদী বাজার থেকে বাড়ী ফেরার পতে ৭/৮ জন অজ্ঞাত সন্ত্রাসী তাকে পথরোধ করে হত্যার উদ্দ্যেশো শুধুমাত্র নির্বাচন থেকে সরে দাড়াতে বলেন। যদি সে নির্বাচন থেকে সরে না দাঁড়ায় তাহলে সন্ত্রাসী বাহীনিরা তাকে হত্যা করবে বলে হুশিয়ারী দেন।

এ ব্যাপারে সন্ত্রাসের অভিযোগে অভিযুক্ত উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুুল ইসলাম লাল্টুর ব্যক্তিগত ০১৭১২ ২০২৯০৭ নাম্বারে একাধিকবার ফোন করে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করলে ফোন রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। অন্যদিকে সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করে আওয়ামীলীগের প্রবীন নেতা আনোয়ার হোসেন প্যানেলকে বিজয়ী করায় শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, ভাইস চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব আরাফাত হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিনা আনোয়ার ময়না, ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার নূরুল ইসলাম, আফজাল হোসেন হাবিল, আলহাজ্জ্ব আব্দুল হামিদ সরদার, গাজী মাহবুবুর রহমান মফে, উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ মাসুমুজ্জামান মাসুম, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান তুহিন, পৌর যুবলীগের সভাপতি জুলফিকার আলী, সাধারণ সম্পাদক নয়ন হোসেন, ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মনিরুল ইসলাম ও সোহাগ রানা নয়নসহ আওয়ামী, যুবলীগের নের্তৃবৃন্দ প্রমুখ।