কলারোয়ায় মির্জাপুরে সরকারী জায়গায় বিলাশ বহল ভবন র্নিমানের অভিযোগ বিএনপি’র নেতা রহিমের বিরুদ্ধে! পর্ব-১

0
21
কলারোয়ায় মির্জাপুরে সরকারী জায়গায় বিলাশ বহল ভবন র্নিমানে
কলারোয়ায় মির্জাপুরে সরকারী জায়গায় বিলাশ বহল ভবন র্নিমানে

কলারোয়ায় মির্জাপুরে সরকারী জায়গায় বিলাশ বহল ভবন র্নিমানের

অভিযোগ বিএনপি’র নেতা রহিমের বিরুদ্ধে! পর্ব-১

সাতক্ষীরা জেলা প্রতিনিধি:সাতক্ষীরার কলারোয়ায় পৌরসভার প্লান বা অনুমতি না থাকায় সদরের মির্জাপুর ৯ নং ওয়ার্ডে প্রায় ৩ কোটি টাকা মূল্যের সরকারী জমি দখল করে বিলাস বহল ভবন নির্মান করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক বিএনপি’র নেতার বিরুদ্ধে।

সামনে এতিমখানার সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে এ নির্মান কাজ করা হচ্ছে বলে দেখা যায়।আর এই বিএনপি’র নেতার মদদ দেন উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা।প্রকাশ্যে সরকারী জমি দখল করে বিলাস বহল ভবন নির্মান তৈরী করা হলেও স্থানীয় পৌর প্রকৌশলী ওয়াজিহুর রহমান, ভুমি কর্মকর্তা খলিলুর রহমান ও এসিল্যান্ড কর্মকর্তা অহিদুল ইসলাম চোখ খুলে নির্মান কাজ দেখছেন।

অভিযোগ উঠেছে ভূমি কর্মকর্তা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তার নির্দেশ মানছেন না দখলবাজ রহিম।
নিবার্হী কর্মকর্তা বার বার কাজ বন্ধের জন্য নির্দেশ দিলেও তা অমান্য করে বহুল তবিয়তে নির্মান কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন ওই বিএনপি’র নেতা। এখানেই প্রশ্ন দেখা দিয়েছে পৌরসভার অনুমুতি না নিয়ে কিভাবে বিলাশ বহল ভবন নির্মান কাজ করা হচ্ছে। আসলে ভূমি কর্মকর্তা বড় না উপজেলা কর্মকর্তা বড়, নাকি বিএনপি’র ওই নেতা বড়। প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতার ছত্র- ছায়ায় থেকে তার নির্মান কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে বলে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতারা অভিযোগ করেন।

পৌরসভার কাউন্সিলর আওয়ামীলীগ নেতা আকিমুদ্দিন আকি ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল লতিফ জানায়, মির্জাপুর ওয়ার্ডে সরকারী খাস জমি দখল করে বিলাশ বহল ভবন নির্মান করছেন একই ওয়ার্ডের বাসিন্দা যুবলীগ নেতা মাহবুবুর রহমান বাবু হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামী আব্দুর রহিম।
দুই আওয়ামীলীগ নেতা অভিযোগ করে বলেন ২০১৩ সালের আব্দুর রহিমের নেতৃত্বে মির্জাপুরসহ ওই এলাকায় আগুন সন্ত্রাস, হত্যা, হামলা ও গাছকাটা হতো। রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে চালানো হতো তান্ডব। বর্তমানে সরকারী জমি দখল করে বিলাশ বহল ভবন নির্মান শুরু করে দেয়।

সামনে এতিমখানার সাইন বোর্ড ঝুলিয়ে ভিতরে প্রায় ৩ কোটি টাকার জমি দখল করে নির্মান কাজ চালিয়ে যাচ্ছে দখলবাজ রহিম।তাকে সব ধরনের সহযোগিতা দিচ্ছেন ভূমি কর্মকর্তা খলিলুর রহমান, পৌর সভার প্রকৌশলী ওয়াজিহুর রহমান ও এসিল্যান্ড কর্মকর্তা অহিদুল ইসলাম। তারা আব্দুর রহিমের কাছ থেকে মোটা অংকের আর্থিক সুবিধা নিয়ে নির্মান কাজ চালিয়ে যেতে সহযোগিতা করছেন। অদৃশ্য শক্তির কাছে বিএনপি নেতার এই বিলাশ বহল বাড়ি নির্মান করায় আওয়ামীলীগ নেতাদের মধ্য ব্যাপক ক্ষোপের সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মনিরা পারভীন জানায়, বিষটি তিনি জেনেছেন। বর্তমানে নির্মান কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে এবং কাজ বন্ধ। সরকারী জমি দখলবাজকে কোন ভাবেই ছাড় দেয়া হবে না। তাছাড়া ওই জমির বিষয়ে আদালতে একটি মামলা চলছে বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে পৌরসভার মেয়র গাজী আক্তারুল ইসলাম জানান, বর্তমানে নির্মান কাজ বন্ধের জন্য বার বার বলা হয়েছে দখলবাজ রহিমকে। দখলবাজ রহিম মেয়রের নির্দেশ না মানায় পরবর্র্তিতে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য কলারোয়া থানার একটি অভিযোগ করেন।

MAXZIONIT